রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৫:০৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নেতৃত্বে আসছে কারা! খাগড়াছড়িতে কাঠ ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচন চলছে পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ গড়তে কাজ করছে বিডি ক্লিন পার্বত্য চুক্তির ২৩তম বর্ষপূর্তি পালিত হবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শান্তি পরিবহণ অবরোধ ও অফিসে অবস্থান ধর্মঘটের আল্টিমেটাম আনোয়ার হত্যা মামলায় আসামী জসিম এর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড খাগড়াছড়িতে সেনাবাহিনীর উদ্যেগ বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প খাগড়াছড়িতে জেলা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক মতবিনিময় সভা বঙ্গবন্ধুকে অবমাননার প্রতিবাদে গুইমারায় মানববন্ধন ও সমাবেশ দুর্বলের উপর সবলের অত্যাচার গুইমারার বড়পিলাকে প্রতিপক্ষের আতর্কিত হামলায় আহত-৮ মানিকছড়ি থানা-পুলিশের অনন্য দৃষ্টান্ত, ছিনতাইকৃত মোটরসাইকেল উদ্ধার
খাগড়াছড়িতে ৩৫ সাংবাদিকের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে পৃথক দুই জিডি

খাগড়াছড়িতে ৩৫ সাংবাদিকের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে পৃথক দুই জিডি

SONY DSC

[highlight]পৌর মেয়রের কর্তৃক সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন[/highlight]

SONY DSC

নিজস্ব প্রতিবেদক : খাগড়াছড়ির প্রথম আলো ফটো সাংবাদিক নিরব চৌধুরী বিটনের উপর “খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র রফিকুল আলমের শারিরীক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে খাগড়াছড়ির পেশাজীবি সাংবাদিকরা।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় খাগড়াছড়ি শাপলা চত্তরে সাংবাদিক নীরব চৌধুরীকে মারধরের ঘটনায় আয়োজিত মানববন্ধনে অংশ নেয় খাগড়াছড়ি সকল প্রিন্ট,টেলিভিশন ও অনলাইন মিডিয়ার পেশাজীবী সাংবাদিকরা।

খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলা প্রেস ক্লাব সভাপতি নুরুল আলম, সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদাক ফোরকানুল হক সাকিব, প্রচার সম্পাদক শাহীন আলম, অর্থ সম্পাদক আবুল হোসেন রিপন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ইমরান হোসেন এবং রফিকুল ইসলামসহ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ খাগড়াছড়ি জেলার প্রথম আলো পত্রিকার ফটো সাংবাদিক নীরব চৌধুরীকে পৌরসভার মেয়র কর্তৃক মারধরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

সাংবাদিকদের মানববন্ধন চলাকালীন সময় খাগড়াছড়ির পৌর মেয়র রফিকুল আলমের লোকজনরা দিদার প্রকাশ কসাই দিদারের নেতৃত্বে মানববন্ধনের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে ঘুরে এসে শাপলা চত্তরে মানবন্ধনের ৫-৬ গজ দুরে এসে সমাবেশ করে।

এ সময় বিক্ষোভকারীরা দিদারের নেতৃত্বে সাংবাদিকদের আস্তনা ভেঁঙ্গে দাও ঘুরিয়ে দাও বলে মাইকে শ্লোগান দেন। পরে প্রকাশ্যে সাংবাদিকদের জবাই করার ঘোষনা দেন।

আর বালু উত্তোলনের সংবাদ প্রকাশ করায় এনটিএন নিউজের জেলা প্রতিনিধি মোঃ আবু দাউদ, এসএ টিভি’র প্রতিনিধি মোঃ নুরুল আজম ,চ্যানেল ২৪ ও সমকালের প্রতিনিধি প্রদীপ চৌধুরী ও একাত্তর টিভি’র প্রতিনিধি রূপায়ন তালুকদার চার জনের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে হুমকি মুলক শ্লোগান দেন।

মানববন্ধনের পর সকল সাংবাদিক খাগড়াছড়ির এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা,জেলা প্রশাসক মোঃ ওযাহিদু জ্জামান এবং পুলিশ সুপার মোঃ মজিদ আলী সাথে দেখা করে এবং জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে বিভিন্ন মিডিয়ার ৩৫ জন সাংবাদিক খাগড়াছড়ি  মডেল থানায় সাধারণ ডায়রী করে। জিডি নং ১০১৮, তারিখ- ২০ ডিসেম্বর ২০১৬। পরে মেয়রের মারধরে আহত সাংবাদিক নীরব চৌধুরীর জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে আরেকটি জিডি করে। জিডি নং ১০২০, ২০ ডিসেম্বর ২০১৬।

উল্লেখ্য যে গত রবিবার প্রথম আলোর খাগড়াছড়ির ফটো সাংবাদিক পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গেলে মেয়র রফিকুল আলমের সমর্থক কসাই দিদার তার লোক দিয়ে ধরে মেয়রের কাজে দেন। পরে মেয়র তাকে শারীরিক নির্যাতন করে। পরে সহকর্মী সাংবাদিকরা নিরব চৌধুরী বিটনকে হাসপাতালে ভর্তি করে।

খাগড়াছড়ি পেশজিীবী সাংবাদিকদের হত্যার হুমকির  ঘটনায় খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসক মোঃ ওযাহিদুজ্জামান এ ঘটনা নিন্দা জানিয়েছেন বলে একজন জন প্রতিনিধি এ কাজ করা কখনো শোভা পায় না। এবং সাংবাদিকদের আইনি সহায়তা নেওয়ার পরামর্শ দেন এছাড়া ও  বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে।
সাংবাদিক নীরব চৌধুরীকে শারিরীক নির্যাতনে জেলা বিএনপির নিন্দা ও প্রতিবাদ
খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র রফিকুল আলম কর্তৃক দৈনিক প্রথম আলো’র খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার আলোকচিত্রী সাংবাদিক নীরব চৌধুরীকে শারিরীক নির্যাতন ও লাঞ্ছিত করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি। সেই সাথে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে রফিকুল আলমের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি সভাপতি ও সাবেক এমপি ওয়াদুদ ভূইয়া।

আলোকচিত্র সাংবাদিক নিরব চৌধুরী গত ১৭ ডিসেম্বর শনিবার সকালে পৌর সদরের রাজ্যমণি পাড়া এলাকায় সরকারী রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলণের ছবি তুলতে গেলে মেয়র রফিকুল আলমের বাহিনী ধস্তাধস্তি করে নীরব চৌধুরীকে মেয়রের কার্যালয়ে নিয়ে আসে। পরে মেয়র রফিকুল আলম নিজেই নীরব চৌধুরীকে শারীরিক নির্যাতন করে এবং মুচলেখায় স্বাক্ষর নিয়ে ছেড়ে দেয়। ছাড়াও আহত নীরব চৌধুরী খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের ৭নং কেবিনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে মেয়র রফিকুল আলমের শাস্তির দাবী: সন্ত্রাসের গডফাদার উল্লেখ করে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি ওয়াদুদ ভূইয়া বলেন, পৌর মেয়র রফিকুল আলম কর্তৃক বিএনপি নেতাকর্মী ও সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা নতুন কিছু নয়। এমন অসংখ্য ঘটনার রেকর্ড রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

জানায় যায় সন্ত্রাসীরা নাকি ইট, বালু, হাট-বাজার, আলু-কলা, কাফলাং খাদ্যশস্য, টোল,টিয়ার-কাবিখা, বাস-ট্রাক, গাছ-বাঁশ, গনপূর্ত, এলজি আর ডি, পানি উন্নয়ন, নদী শাসন, উন্নয়ন বোর্ড, জেলা পরিষদ, পাবলিক হেলথ, পৌরসভা সহ পুরো জেলায় তার এসব দুর্নীতি-অনিয়ম করে আসছে দীর্ঘদিন থেকে। রফিকুল আলমের এসব অপকর্ম এবং দুর্নীতি-অনিয়মের সংবাদ পরিবেশনের দায়ে এর আগেও একই কায়দায় সাংবাদিক এইচএম প্রফুল্ল ও প্রয়াত সাংবাদিক সুকুমার বড়–য়াকে নির্যাতন করেছিলো। এছাড়াও গত পৌর নির্বাচনের আগে বাজার পুকুর ভারটের সংবাদ পরিবেশনের কারণে সাংবাদিক অপু দত্ত’কে প্রাণ নাশের হুমকি এবং নির্বাচনের পর সাংবাদিক নুরুল আজমকে প্রকাশ্যে লাশ ফেলে দেবার হুমকি দেয়।

তাৎক্ষনিক এই দুই সাংবাদিক সদর থানায় সাধারণ ডায়েরী করলেও এখন পর্যন্ত তার কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি। পুলিশ প্রশাসন রহস্যজনক কারণে নীরব ভূমিকা পালন করছে। খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক মো: আবু তালেব স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ নিন্দা জানান।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd
error: Content is protected !!