রবিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:৩৯ পূর্বাহ্ন

বীর মুক্তিযোদ্ধা জুলু মারমা’র শেষ বিদায়: বিভিন্ন সংগঠনের শোক

বীর মুক্তিযোদ্ধা জুলু মারমা’র শেষ বিদায়: বিভিন্ন সংগঠনের শোক

নিজস্ব প্রতিবেদক,খাগড়াছড়ি:: খাগড়াছড়ির বীর মুক্তিযোদ্ধা বয়োবৃদ্ধ মংশোয়েঅং মারমা (৮১) প্রকাশ জুলু মারমা ও জুলু বাবু বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ জেলা শহরের রিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেছেন। মৃত্যুকালে তিনি তিন সন্তান, এক কন্যা, স্ত্রী, পুত্রবধু, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। রামগড়ে জন্ম নেয়া প্রবীন এই মুক্তিযোদ্ধা রামগড়-মানিকছড়িসহ মুক্তিযুদ্ধের রণাঙ্গনে সম্মুখসমরে অংশ নিয়ে জীবনযুদ্ধে জয়ী হন। কর্মজীবনে কৃষি বিভাগে কর্মকর্তা হিশেবে কর্মরত ছিলেন। নির্লোভ-অমায়িক ও বন্ধুবৎসল মানুষ হিশেবে খাগড়াছড়িতে তাঁর সুনাম বিদিত। তাঁর মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে শত শত মানুষ তাঁর বাড়িতে ভীড় জমান।

জুলু মারমা’র মৃত্যুতে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র মো: রফিকুল আলম, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল আলম দিদার,রামগড় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপি’র যুগ্ম-সা: সম্পাদক শহিদুল ইসলাম ভূইয়া ফরহাদ, জেলা পরিষদ সদস্য নির্মলেন্দু চৌধুরী, লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রে¤্রাচাই চৌধুরী, পানছড়ি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ সমীর দত্ত চাকমা, মারমা উন্নয়ন সংসদ-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি মংপ্রু চৌধুরী, সা: সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মংসুই প্রু চৌধুরী, খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে), খাগড়াছড়ি পরিবেশ সুরক্ষা আন্দোলন-এর সভাপতি প্রদীপ চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি টিকো চাকমা ও সা: সম্পাদক জহির উদ্দিন ফিরোজ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড এবং নজরুল সংগীত শিল্পী পরিষদ সভাপতি রতন দেবনাথ পৃথক পৃথক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ করেছেন।

খাগড়াছড়ি জেলা সংস্থা’র সা: সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য জুয়েল চাকমা জানান, ভীষণ ক্রীড়ামোদী এই মানুষটি খাগড়াছড়ির প্রবীন সমাজের এক গুরুত্বপূর্ণ অভিভাবক ছিলেন। একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হয়েও কখনো নিজের জন্য কিছু চান নি। জুলু বাবু’র সন্তানদের মধ্যে খাগড়াছড়ির ক্রীড়াঙ্গণের উজ্জল নক্ষত্র প্রয়াত অংক্যজাই মগ টকি ছাড়াও সাবেক ছাত্রনেতা রুকু মারমা, রুপেন মারমাও কৃতী ক্রীড়াবিদ।

খাগড়াছড়ির নারী সাংবাদিক ও জুলু মারমা’র পুত্রবধু চিংমেপ্রু মারমা জানান, তিনি দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন। জাতির একজন শ্রেষ্ঠ সন্তান হলেও শেষ বয়সে সরকারের নানা কর্তৃপক্ষ থেকে তাঁর পাশে সহযোগিতার হাত বাড়ানোর দরকার ছিল। কিন্তু সেটি হয়নি বলে জুলু মারমা কখনো অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেন নি। প্রয়াতের মেঝ সন্তান ও খাগড়াছড়ি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অংপ্রু মারমা জানান, শুক্রবার দুপুরের পর খাগড়াছড়ির বটতলীস্থ মহাশ্মশানে জুলু বাবু’র দাহক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd
error: Content is protected !!