রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৭:২৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
গুইমারায় অনলাইন স্কুল এর শুভ উদ্ধোধন করেন কংজরী চৌধুরী গুইমারায় নিরাপদ পানি সরবরাহ ব্যবস্থা’র উদ্ধোধন করেন পাজেপ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী গুইমারায় এস.আলম গাড়ী থেকে চোলাই মদসহ দুই জন আটক অবশেষে আলোচিত ধর্ষণ মামলার আসামী শ্যাম প্রসাদ আটক করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৪৫ খেলোয়াড় ও ক্রীড়া সংশ্লিষ্টদের সহায়তা প্রদান গুইমারায় চাঞ্চল্যকর শিশুধর্ষণ মামলা নিয়ে নতুন ষড়যন্ত্র সাংবাদিক শাহরিয়ার ইউনুছ’র পিতার মৃত্যুতে পাজেপ চেয়ারম্যানের শোক চারগ্রামের ৬শতাধিক পরিবার পেলো নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ পল্লী চিকিৎসক টিপু হত্যাকারীদের বিচার দাবী কর্মহীন ২ হাজার পরিবারের পাশে খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ

গুইমারায় বেড়েছে পুলিশের অনিয়ম

ডেস্ক রিপোর্ট:: খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারায় পুলিশের অনিয়ম ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। দিন দিন পুলিশের উপর থেকে আস্থা হারাচ্ছে সাধারন জনগন। পুলিশ সুপারের চোখে ফাঁকী দিয়ে আর্থিক লাভবান হচ্ছে এক শ্রেণির দুর্নিতীবাজ পুলিশ কর্মকর্তা। পুলিশের এসব কর্মকান্ডে হয়রানির স্বীকার সকল শ্রেণি পেশার মানুষ।

গত ৬ মাসে গুইমারা থানা পুলিশের বিভিন্ন হয়রানী মুলক কর্মকান্ডে বিঘিœত হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা সহ সামাজিক ব্যবস্থা। উপজেলার বিভিন্ন ধর্ষনের অভিযোগে এলাকাবাসী কর্তৃক আটকের পরেও থানায় ব্যবস্থা না নেওয়া, বিভিন্ন স্থানে চাঁদা বাজী ও মাদকের উৎপাত বেড়ে যাওয়ায় আইন শৃঙ্খলা বিঘিœত হচ্ছে বলে দাবী করছে স্থানীয়রা।

বুদংপাড়া কিশোড়ী দর্শনের ব্যপারে পদক্ষেপ না নিয়ে রহস্য জনক কারনে সামাজিক সমাধানের নামে প্রহসন করা। সাম্প্রতিক সময়ে উপজেলার লুন্দুক্য পাড়ায় এরশাদ নামে এক যুবককে নারী সহ আটক করে। তক্ষক পাচারকারীদের থেকে বিভিন্ন সময় চাদা নেয়। রামসু বাজার সহ বিভিন্ন এলাকায় মেলা চলাকালীন জুয়া খেলায় কোন প্রকার নিষেধাজ্ঞা নেই পুলিশের। ফরিদপুর থেকে কিশোরী নিয়ে আসা উপজাতীয় বাবু মারমার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি গুইমারা থানা পুলিশ। রাতের আধারে চোরাই কাঠ পাচারের সময় মোটা অংকের টাকা নিয়ে কাঠ পাচারে সহযোগিতা করে।

তক্ষক পাচারের সময় পাচার কারীর কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে হাফছড়ি পুলিশ ফাঁড়ীর আইসি আসহাব উদ্দীন। ঘটনাটি উদ্ধোতন পুলিশ প্রশাসন পর্যন্ত যানাযানি হলে, বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য নাটকীয় ভাবে হাতিয়ে নেওয়া টাকা গুলী ফেরত দেন। বিষয়টি জাতিয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত হলে, যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে, কিন্তু তদন্ত কমিটি হাফছড়ি আইসি’র বিরুদ্ধে অদ্যবদি পর্যন্ত কোন কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। দুর্নিতির দ্বারা অব্যহত রেখে এখনো তিনি কর্মস্থলে বহাল রয়েছেন।

এ বিষয়ে জালিয়াপাড়া সমাজ সভাপতি আব্দুল কাদের বলেন, পুলিশের এই ধরনের কর্মকান্ড অব্যহত থাকলে জনসাধারণ পুলিশের উপর আস্থা হারিয়ে ফেলবে। তিনি আরো বলেন, বিপদে মানুষ নিকটস্থ পুলিশের সহযোগিতা নিবে কিন্তু কিছু পুলিশ অর্থলোভে যদি জনসাধারনের বিপদের কারণ হয়ে উঠে তাহলে তারা কোথায় যাবে। উর্দ্ধোতন কর্মকর্মাদের নিকট এর যথাযথ ব্যবস্থার আশা করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

Design & Developed BY CHT Technology