খাগড়াছড়িতে “ডেঙ্গু” আতঙ্ক

Spread the love

বেড়েছে রোগীর সংখ্যা

নুরুল আলম:: খাগড়াছড়িতে ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ছে ডেঙ্গু আতঙ্ক। গত ১ সপ্তাহে বেড়েছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও। তবে ডেঙ্গু আক্রান্তরা ঢাকায় থেকে এ রোগবহন করে নিয়ে এসেছে বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যে ডেঙ্গু মোকাবেলায় খাগড়াছড়ি আধুনিক সদর হাসপাতালে মনিটরিং সেল গঠন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়ির সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু শনাক্তের কীট পৌছলেও বিভিন্ন ডায়াগনিস্টিক সেন্টার মূখী হয়ে পড়েছেন রোগীরা।

সূত্র মতে, এ পর্যন্ত খাগড়াছড়িতে মোট ২২ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলেও সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছে ১২ রোগী। বাকী ১০ জন নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে এবং শঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এদিকে-ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে বালাই ত্রিপুরা (১৭) খাগড়াছড়ির পানখাইয়া পাড়ার বাসিন্দা বর্তমানে বাড়ী ফিরেছে।

তিনি রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় লালমাটিয়া মহিলা কলেজের ছাত্রী। কলেজ থাকাকালীন সময় তিনি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলে অসুস্থ বালাই ত্রিপুরাকে খাগড়াছড়ি এনে হাসপাতালে ভর্তি করানো পর চিকিৎসা নিয়ে তিনি বাড়ী ফিরেন। এছাড়াও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন, পানছড়ির রেশমী চাকমা,জেলা সদরের তৃষা চাকমা,নবদর্শী চাকমা,রমেশ ত্রিপুরাও।

খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন মো.ইদ্রিস মিঞা জানান, অন্য জেলার তুলনায় খাগড়াছড়িতে ডেঙ্গুর প্রভাব নেই। তবে যারা আক্রান্ত হচ্ছে তারা বাহিরের জেলা থেকে আক্রান্ত হয়ে আসছে। খাগড়াছড়ি হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ডেঙ্গু রোগীদের নিবিড় পর্যবেক্ষন ও চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ হয়ে পড়িছে বলে তিনি জানিয়ে বলেন, ডেঙ্গুতে আতঙ্কিত হওয়া কিছু নেই। প্রতিরোধে জনসচেতনতা প্রয়োজন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক নয়নময় ত্রিপুরা জানান,ঢাকায় বসবাসরত বা জরুরী কাজে গিয়ে ঢাকা থেকে ফেরা অনেকেই হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছে । তবে ভয়ের কিছু নেই। এদিকে বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়ির সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু শনাক্তের ১২০টি কীট পৌছেছে। সরকারিভাবে প্রাপ্ত এসব কীটের মাধ্যমে হাসপাতালে ডেঙ্গুরোগ শনাক্ত করা সম্ভব হবে এবং খাগড়াছড়িতে এখনো ডেঙ্গু বড় ধরনের কোন প্রভাব ফেলতে পারেনী বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Specify Facebook App ID and Secret in Super Socializer > Social Login section in admin panel for Facebook Login to work

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*