বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ১০:৪১ অপরাহ্ন

রামগড়ে জমি বিক্রয় করে চার ভাইকে হয়রানি

রামগড়ে জমি বিক্রয় করে চার ভাইকে হয়রানি

নিজস্ব প্রতিবেদক::: খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলাধীন আলদাপাড়া এলাকায় ভোগ-দখলীয় জায়গা বিক্রি করে ক্রেতা সমীরন কান্তি মন্ডল, উত্তম কুমার মন্ডল, গৌতম কুমার মন্ডল, সুশান্ত কুমার মন্ডল সহ তাদের চার ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা-হামলা ও হয়রানি করছেন আমিন মিয়া ও তার পুত্র কালাম সহ তাদের সহযোগি একটি মহল।
জানাযায়, জায়গা বিক্রির পর ক্রেতাদের দখলস্থ না করে আমিন মিয়া নিজেই উক্ত জায়গা ভোগ দখলে বিদ্যমান আছে। বিক্রয়কৃত জায়গা থেকে প্রতিনিয়ত গাছ-পালা কেটে নিয়ে যাচ্ছে ও ফল-ফলাদি নিজেই ভোগ করছে। ইতি মধ্যে বিক্রেতা জমি ক্রেতাগণের বিরুদ্ধে কয়েকটি মিথ্যা মামলা দিয়েছেন। এর পরেও ক্ষান্ত হয়নি লোভি বিক্রেতা আমিন মিয়া।
অভিযোগে ক্রেতা গৌতম কুমার মন্ডল বলেন, গত ২ নভেম্বর থেকে নুরুল আলম, ছালাম গাজী, শাহীন আলম, হাছিনা, সুসুমা সহযোগে গাছ-পালা কেটে নিয়ে যাচ্ছে। সহযোগিতায় আমিন মিয়ার পুত্র কালাম রয়েছে। তিনি আরো জানান, আমাদের ছোট বোন শিবানী দেবী মন্ডল বিগত ২দুই বছর যাবৎ নিখোজ রয়েছে। এ ব্যাপারে আদালতে একটি মামলা করলেও মামলা চলাকালীন সময়ে আমাদের অনুপস্থিতিতে মিথ্যা তথ্য দিয়ে মামলাটি খারিজ করান।
জনাযায়, বিক্রেতা আমিন মিয়া এতই লোভী ও চরিত্রহীন যে, মানিকছড়ি উপজেলার বাটনাতলী এলাকায় বসবাস করা সত্তেও সে অন্য উপজেলায় এসে ভূমি সংক্রান্ত বিরোধ সৃষ্টি ও অপচক্রান্তে লিপ্ত হন। শত শত একর জমি জবর দখল করে দখল সত্ত মানুষের নিকট বিক্রয় করে। যাহা সুষ্ঠ্য তদন্ত করলে বেরিয়ে আসবে।
ছালাম গাজী গৌতম কুমার মন্ডল গং এর গাছ- পালা কেটে সীমানা বিরোধ সৃষ্টি করে বলে অভিযোগ করেন, মন্ডল পরিবারের লোকজন। এ বিষয়ে সালাম গাজী সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমিন মিয়া থেকে আমি খাস দখলীয় জায়গা ক্রয় করেছি। উভয়ের উপস্থিতিতে জায়গাটি সীমানা পরিচিহ্নিত করলে বিরোধ নিষ্পত্তি হয়ে যায়, কিন্তু তা না করে আইন-আদালতে মামলা করে গৌতম কুমারের লোকজন আমাদের হয়রানি করেন।
বাটনা ইউপি চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম মোহন বলেন, আমিন মিয়া নিজ এলাকায় ভূমিদস্যুতার ও অবৈধ গাছ পাচারের সাথে লিপ্ত রয়েছেন। সে মানুষের বাগান থেকে জোর পূর্বক গাছ-গাছালী কেটে নিয়ে যায়। কাহারো বাধা বিপত্তিতে সে কান দেয় না। আইনের তোয়াক্কা না করে সে বিভিন্ন অপকর্মের সাথে লিপ্ত রয়েছে। যে সমস্থ হিন্দু পরিবার আমিন মিয়া দ্বারা হয়রানির স্বীকার হয়েছেন সেই বিষয়টির ব্যপার আমি সর্বাত্তোক সহযোগিতা করবো তবে উক্ত স্থানীয় চেয়ারম্যানে সহযোগিতা নিলে বিষয়টি আরো সহজ হবে।
পিসি নুরুল আলম বলেন, গৌতম কুমার মন্ডলসহ অন্যান্নদের সাথে জমি বিরোধ আছে। তাকে পুজি করে বিভিন্ন ভাবে মিথ্যা মামলা ও শিবানী দেবী মন্ডলকে গুম করার মিথ্যা অভিযোগ সহ আদালতে মামলা দিয়েছে জন্ম নিবন্ধন জালিয়াতি করে। গত কাল জমি নিয়ে আদালতে একটি মামলার হাজিরা ছিল, মন্ডল গং এরা হাজির হয়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

Design & Developed BY CHT Technology
error: Content is protected !!