বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন

মানিকছড়ির তিনটহরীতে বোনের ফলজ বাগান কেটে বিভিন্নভাবে হয়রানীর পরিকল্পনা

মানিকছড়ির তিনটহরীতে বোনের ফলজ বাগান কেটে বিভিন্নভাবে হয়রানীর পরিকল্পনা

নিজস্ব প্রতিবেদক:: খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে বোনের জায়গায় সৃজন করা বাগান ও চলাচল রাস্তা কেটে বোনকে ডেকে নিয়ে মারধরের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে পর্যায়ক্রমে তিনবার ফল-ফলাদী গাছ কেটে হয়রানী করছে তারই আপন মেঝ ভাই শাহ আলম ও
তার ছেলে মোঃ সোহেল।
অভিযোগ মূলে যানাযায়, ২০ ও ২১ জুন’২০২০ নিজ বাগানে ফলজ চারা রোপন করার সময় ভাইপো মোঃ সোহেল পর্যায়ক্রমে বাধা প্রদান করে ও বিভিন্ন প্রকার হুমকি দেয়। পরবর্তীতে তার ভাই শাহ আলম অকথ্য ভাষায় গাল মন্দ করে ও সৃজিত ফলজ বাগান কেটে ফেলে।

অভিযোগে নুর বেগম জানায়, আমরা তিন ভাই ও দুই বোনের মধ্যে আমি সবার ছোট। পিতার সম্পত্তি ভাগ-বন্টন না হওয়ায় নিজ প্রয়োজনে সকলের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে বসত ঘর নির্মান করে বসবাস করছি ও বড় ভাই এলাকায় না থাকায় তাদের সম্পত্তির দেখা-শোনা করছি। কিন্ত মেঝ ভাই শাহ আলম একাই উক্ত সম্পত্তির দখলদার হতে চায়। তাই বিভিন্ন কৌশলে আমাদের উপর অন্যায়-অত্যাচার চালাচ্ছে। গতকাল চলাচল রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে পরিবারের লোকজনদের আটক করে। তখন ৪র্থ ধাপে সংঘর্ষ করার চেষ্টা চালায়। এবং শাহ আলম এর স্ত্রী সুলতানা বেগম ও তার ছেলে মোঃ সোহেল অকথ্য ভাষায় গাল-মন্দ করে ও আমাদের স্ব পরিবারে বাড়ী-ঘর ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকি দেয়। ইতিপূর্বেও একই রাস্তা দিয়ে বাড়ী যাওয়ার সময় হত্যার উদ্দেশ্যে আমার স্বামীকে মাথায় আঘাত করে গুরুত্বর আহত করে লক্ষাধীক অর্থের ক্ষয়-ক্ষতি করে। এ বিষয়ে গতকাল থানায় অভিযোগ করলে তদন্ত অফিসার ঘটনা স্থলে গিয়ে স্ব-চোখে ক্ষয়-ক্ষতির দৃশ্য দেখেন এবং সোহেলের নিকট জিজ্ঞাসা-বাদ করলে সোহেল ও তার বাবা গাছ কেটেছে মর্মে স্বীকার করে।

তিনি আরো বলেন, বড় ভাই নুরুল আলমের মাধ্যমে তিনটহরী ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদকে অবহিত করলেও তিনি কোন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেননি। কিন্তু ঘটে যাওয়া ঘটনার পর ঘটনাস্থলে গ্রাম পুলিশ নায়েব আলীকে পাঠান।
ঘটনার বিবরণে জানাযায়, পূর্বে সৃজিত ফলজ বাগান কাটার সময় আমি নিষেধ করলে শাহ আলমের স্ত্রী সুলতানা বেগম ভবিষ্যতে আর গাছ-পালা কাটবেনা বলে বড় ভাইকে টেলিফোনে প্রতিশ্রুতি দিলেও পরবর্তীতে একই সমস্যার সৃষ্টি করে।

মানিকছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ফলজ বাগান কর্তন ও হুমকীর ঘটনায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয়ে একজন তদন্তকারী অফিসারকে দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd
error: Content is protected !!