রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৫:০৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নেতৃত্বে আসছে কারা! খাগড়াছড়িতে কাঠ ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচন চলছে পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ গড়তে কাজ করছে বিডি ক্লিন পার্বত্য চুক্তির ২৩তম বর্ষপূর্তি পালিত হবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শান্তি পরিবহণ অবরোধ ও অফিসে অবস্থান ধর্মঘটের আল্টিমেটাম আনোয়ার হত্যা মামলায় আসামী জসিম এর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড খাগড়াছড়িতে সেনাবাহিনীর উদ্যেগ বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প খাগড়াছড়িতে জেলা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক মতবিনিময় সভা বঙ্গবন্ধুকে অবমাননার প্রতিবাদে গুইমারায় মানববন্ধন ও সমাবেশ দুর্বলের উপর সবলের অত্যাচার গুইমারার বড়পিলাকে প্রতিপক্ষের আতর্কিত হামলায় আহত-৮ মানিকছড়ি থানা-পুলিশের অনন্য দৃষ্টান্ত, ছিনতাইকৃত মোটরসাইকেল উদ্ধার
রামগড়ে মেয়র প্রার্থী হিসাবে রফিকুল আলম কামাল আলোচনায় শীর্ষে : প্রতিবেদন-৪

রামগড়ে মেয়র প্রার্থী হিসাবে রফিকুল আলম কামাল আলোচনায় শীর্ষে : প্রতিবেদন-৪

নুরুল আলম :: রামগড়ে মেয়র পদে প্রার্থী হিসাবে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি রফিকুল আলম কামাল আলোচনায় শীর্ষে।তফসিল ঘোষনার পূর্বেই আওয়ামীলীগের প্রার্থীরা নিজ দলীয় মনোনয়ন পেতে শুরু করেছেন লবিং। অনেক আগে থেকেই ব্যানার-ফেস্টুনের পাশাপাশি স্থানীয় পত্রপত্রিকা ও সামাজিক মাধ্যমে প্রার্থীতার ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামীলীগের প্রার্থীরা। তবে অনেক আগে থেকে গণসংযোগে আসা প্রার্থীরা দল ভিত্তিক স্থানীয় সরকার নির্বাচনের সিদ্ধান্তে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন।

রামগড় পৌর যুবলীগ নেতা ও ১নং পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন বলেন, রফিকুল আলম কামাল ভাই দলের দুঃসময়ে তৃনমুলের আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের পাশে ছিলেন ছায়ার মতন, মেয়র পদে তিনি যোগ্য দাবিদার, একজন ত্যাগি কর্মী হিসাবে তাকে যেন দল সঠিক মুল্যায়ন করে।

রামগড় পৌর যুবলীগ নেতা ও ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুর মোহাম্মদ শামীম বলেন, রফিকুল আলম কামাল ভাই একজন দক্ষ সংগঠক ও ত্যাগি ও নির্যাতিত পরিবারের সন্তান, ১৯৯৬ সালে রামগড়ে যখন হাতে গোনা ১০-১৫টি পরিবার আওয়ামীলীগ করতো এবং যখন রামগড়ে আওয়ামীলীগ করার মত তেমন কেউ ছিলোনা, তখন ঐ দুঃসসময়ের নির্যাতিত পরিবারের মধ্যে ১টি পরিবার হলো কামাল ভাইদের পরিবার ও ১টি তৈছালাতে আমাদের পরিবার। রফিকুল আলম কামাল ভাইয়ের পরিবার তৎকালিন বিএনপি জামায়াত সরকারের আমলে একাধিক মিথ্যা মামলা-হয়রানির শিকার হয়েছেন। তবুও তিনি দলের হাল ছাড়েননাই। তৎকালিন সময়ে দলের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে কামাল ভাই ও আমরা সবাই মিলে দলকে সুসংগঠিত করে রেখেছি। আমি মনে করি কামাল ভাইয়ের মত ত্যাগি লোক যদি দলিয় মনোনয়ন পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হন তাহলে দলের ত্যাগিদের সঠিক মুল্যায়ন হবে, কারন কামাল ভাই নিজেও ত্যাগি এবং তিনি সহজেই ত্যাগিদের মনের দুঃখটা বুঝতে পারবেন। শুভ কামনা রইলো কামাল ভাইয়ের জন্যে।



রামগড় উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কাউসার হাবিব শোভন বলেন, জনাব রফিকুল আলম কামাল দলের জন্যে নিবেদিত প্রান, শুধুমাত্র আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসাবে নয় একজন সাধারন মানুষ হিসাবে তিনি রামগড় পৌর এলাকায় প্রচুর জনপ্রিয় ব্যক্তি। দলের দুঃসময় তৃনমুলের নেতাকর্মিরা তাকে সবসময় পাশে পেয়েছেন। বিএনপি জোট সরকার ক্ষমতায় থাকাকালিন ওনার (জনাব রফিকুল আলম কামালের) মা মারা যায়, তিনি এতোই হতোভাগা মানুষ যে তার মা কে কবর দিতে আসতে পর্যন্ত পারেন নি। কারন তখন তার বাড়ির চারপাশ ঘিরে রেখেছিলো তৎকালিন বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের কেডার বাহিনী। আমি মনে করি একজন ত্যাগি ও দলের নিবেদিত কর্মী হিসাবে তিনি পৌর মেয়র হিসাবে একমাত্র যোগ্য দাবিদার।

রামগড় উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য সচিব আনোয়ার জাহিদ বলেন, দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী একাধিক ব্যক্তি রয়েছে তাদের মধ্যে জনাব রফিকুল আলম কামাল তৃনমুলের প্রচুর জনপ্রিয়। পৌর এলাকায় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের ওয়ার্ড পর্যায়ের শত শত নেতা-কর্মীরা জনাব রফিকুল আলমের হাতে গড়া। যদি তিনি দলিয় মনোয়নয়ন পান তাহলে আওয়ামীলীগের হাজারো নেতা-কর্মীরা ওনাকে বিজয়ী করতে ঝাপিয়ে পড়বে। আমি মনে করি জনাব রফিকুল আলম কামাল মেয়র পদে একমাত্র যোগ্য দাবিদার।

রামগড় পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈম হাসান নয়ন বলেন, জনাব রফিকুল আলম কামাল আমাদের পৌর ছাত্রলীগের একমাত্র অভিভাবক, আমরা ছাত্রলীগের কর্মীরা যখনি বিপদে পড়েছি তখন তিনি আমাদের বট গাছের মত ছায়া দিয়েছেন, যখন কোনও সংকটে পড়েছি তখনি তিনি আমাদের পাশে দাড়িয়ে অনুপ্রেরনা যুগিয়েছেন। আমরা পৌর ছাত্রলীগ ওনাকে অভিভাবক হিসাবে পেয়ে গর্বিত। তাই আমরা পৌর ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে চাই উনি মেয়র পদে নির্বাচিত হয়ে দলের জন্যে ভালো কিছু করুক।

রামগড় পৌর কৃষকলীগের সভাপতি মাহবুব আলম খান বলেন, যখন থেকে রাজনীতিতে এসেছি তখন থেকে জনাব রফিকুল আলম কামাল ভাইকে দেখেছি রাজনৈতিক পদবিতে থেকেও কোন জনপ্রতিনিধি না হয়েও সাধারন জনগনের পাশে দাড়াতেন, অসহায় গরিব মানুষের খোঁজখবর নিতেন এবং সাহায্য সহযোগিতা করতেন, আশা রাখবো তিনি মেয়র পদে নির্বাচিত হয়ে জনগনের জন্যে পুর্বের চেয়ে আরো ভালো কিছু করার চেষ্টা করবেন, বাংলাদেশ কৃষকলীগ রামগড় পৌর শাখার পক্ষ থেকে শুভ কামনা রইলো।



রামগড় পৌর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাসেম রানা বলেন, গত পৌর নির্বাচনে আমরা নৌকার পক্ষে কাজ করি একজন অসাম্প্রদায়িক কর্মী হিসাবে। রামগড় পৌরসভার ৮৫% ভোট বাঙ্গালী হওয়ার কারনে একটি মহল পৌর নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী বিশ্ব প্রদিপ ত্রিপুরাকে সাম্প্রদায়িকতার জালে আবদ্ধ করে পাহাড়ি বাঙ্গালী ইস্যু তুলে তাকে পরাজিত করে। বর্তমানে জনাব রফিকুল আলম কামাল ভাইকে যদি মেয়র পদে এবার নৌকার মনোনয়ন দেয়া হয় তাহলে কামাল ভাই ১০০% বিজয়ী হবে বলে আমি আশাবাদী। সেক্ষেত্রে গতবারের মত মোবাইল মার্কা নিয়ে কোনও অশুভ শক্তি আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে বাঙ্গালী ৮৫% ভোটারের সরলতার সুযোগ নিতে পারবেনা, এবং সাম্প্রদায়িক ইস্যু তুলে দলের বাহিরে গিয়ে কেউ বিজয়ী হওয়ার কোন সুযোগও থাকবেনা।

মেয়র পদপ্রার্থী রকিকুল আলম কামালের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তৃনমুল থেকে রাজনীতি করে উঠে এসেছি, আমি নিজেকে তৃনমুলের একজন সাধারন কর্মী মনে করি, আমি দলকে ছোট বেলা থেকেই একটা পরিবার মনে করি, তৃনমুল আমার প্রানের স্পন্দন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে সারাজিবন থাকতে চাই। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও আমাদের খাগড়াছড়ি জেলার একমাত্র অভিবাবক জননেতা কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা চাইলে আমি রামগড়ের মেয়র পদে নির্বাচিত হয়ে রামগড়বাসী ও তৃনমুলের নেতা-কর্মিদেরকে পাশে নিয়ে রামগড়কে মডেল পৌরসভা হিসাবে গড় তুলবো।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd
error: Content is protected !!