বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
“প্রকৃত জড়িতদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবী” সাংবাদিকসহ পেশাজীবীদের মানববন্ধন গুইমারাতে কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর পরিচর্যা ও প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ে প্রশিক্ষণ সমাপ্ত খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা ও মাটিরাঙ্গা ইউপি নিবাচনে প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে প্রচার প্রচারণায় নেমেছে প্রার্থীরা খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গা ও গুইমারা ১০ ইউপির প্রতিক বরাদ্ধ গুইমারা উপজেলায় সচেতনতা মূলক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্টিত কোন বিশৃঙ্খলাকারীকে ছাড় দেওয়া হবে না গুইমারাতে ৭০ দুস্থ্য অসহায়ের মাঝে অনুদানের চেক ও ৮০ জনের মাঝে ঋন বিতরণ মানিকছড়িতে বীর মুক্তিযোদ্ধা মনু মিয়ার মৃত্যু, রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন “প্রতিবাদ নয় প্রতিরোধের আহবান” সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিচার দাবী “খাগড়াছড়িতে ইয়াবা কেনার দ্বন্দ্বে প্রাণ গেল যুবকের”
দীঘিনালায় গৃহহীনরা পাচ্ছে স্বপ্নের আবাসন

দীঘিনালায় গৃহহীনরা পাচ্ছে স্বপ্নের আবাসন

নিজস্ব প্রতিবেদক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ৪শত ১৯টি দুস্থ ও হতদরিদ্র গৃহহীন পরিবারের মাঝে স্বপ্নের আবাসন প্রদান করা হচ্ছে।

ইতিমধ্যে উপজেলার মেরুং ইউনিয়নের বড় মেরুং জুরজুরি পাড়ায় ৪২টি ও বেতছড়ি পশ্চিম পাড়ায় ৬০টি গৃহ একসাথে সারিবদ্ধভাবে নির্মাণ করা হয়েছে। যাদের বসবাস করার মতো কোন জমি ও গৃহ নেই তাদের জন্য দুই শতাংশ জমিসহ ঘরগুলো বরাদ্ধ দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি সারিবদ্ধভাবে গৃহ নির্মাণ ও রঙিন টিনে যেনো ফুটে উঠেছে একটি স্বপ্নের আবাসন।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায় দীঘিনালা উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় দুস্থ ও হতদরিদ্র গৃহহীন পরিবারের মাঝে ৪শ ১৯ টি পরিবারের মাঝে গৃহ প্রদান করা হবে। এরমধ্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মোহাম্মদ কাশেম’র ব্যাক্তিগত অর্থায়নে ২টি ঘর প্রদান করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় প্রথম পর্যায়ে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা করে ১শ ৬৭ টি গৃহ নির্মাণের জন্য ২ কোটি ৮৫ লাখ ৫৭ হাজার টাকা বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ১লাখ ৯০ হাজার টাকা  করে ২৫০ টি গৃহ নির্মাণের জন্য ৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকা বরাদ্ধ দিয়েছে সরকার। গৃহ নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। তবে প্রথম পর্যায়ের ১শ ৬৭ টি গৃহ নির্মাণ কাজ শেষে দুস্থ ও হতদরিদ্র গৃহহীন পরিবারের মাঝে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হচ্ছে।

স্বপ্নের এ আবাসন পেয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করছেন উপকারভোগী পরিবারের লোকজন৷

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ উল্লাহ বলেন, যেসব গৃহের নির্মাণকাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে সেসব গৃহের চাবিগুলো দুস্থ ও হতদরিদ্র গৃহহীন পরিবারের মাঝে প্রদান করা হচ্ছে। শিগগিরই সম্পন্ন হবে এ নির্মাণ কাজের। মুজিববর্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পাওয়ার জন্য আবেদনকারীদের মধ্য থেকে তালিকা চূড়ান্ত করতে স্বামী পরিত্যক্ত, বয়স্ক, অসহায় হতদরিদ্র’দের প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মোহাম্মদ কাশেম বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাজ করে যাচ্ছেন। পৃথিবীর কোন দেশে হতদরিদ্র গৃহহীনদের ঘর ও জমি প্রদানের উদ্যোগ বিগত দিনে কেউ গ্রহণ করেনি। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সরকারই এই উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন। আমরা আশাবাদী এই উপজেলার মানুষ আওয়ামী লীগ সরকারের পাশে সর্বদা থাকবে। মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের একমাত্র লক্ষ আওয়ামী লীগ সরকার৷

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd