সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৩০ অপরাহ্ন

প্রবাসীর স্ত্রী’র পরিকল্পিত হত্যা; দাবী জান্নাতুলের ফেরদৌসের পরিবারের

প্রবাসীর স্ত্রী’র পরিকল্পিত হত্যা; দাবী জান্নাতুলের ফেরদৌসের পরিবারের

নুরুল আলম,খাগড়াছড়ি:: খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলাধীন জালিয়াপাড়া এলাকার আবু বক্করের ছেলে প্রবাসী হায়দার আলীর স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস (২৬) নামের এক গৃহবধুর মৃত্যু পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড দাবী করেছে তার পরিবার। সে বিষ পানে আত্মহত্যা করেছে তার শ্বশুড়বাড়ী সূত্রর দাবী। মেয়ের পরিবারের দাবী পরিকল্পিত হত্যা এটি।

মঙ্গলবার (১০ আগস্ট ২০২১) বিকালে গুইমারা উপজেলার জালিয়াপাড়া এলাকায় আবু বক্করের নিজ বাড়ির ওয়াশ রুমে গিয়ে জান্নাতুল বিষপান করে বলে দাবী হায়দারের পরিবারের। দীর্ঘ সময় পরও ওয়াশরুম থেকে বের না হওয়ায় জান্নাতুল ফেরদৌস ডাকাডাকির পর এক পর্যায়ে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক মানিকছড়ি হাসপাতালে নিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৯ টায় তার মৃত্যু হয়। গত ৮ থেকে ৯ বছর আগে আবু বক্করের ছেলে হায়দার আলীর সাথে বিয়ে হয়। তার দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে একটির বয়স ৭ বছর অন্যটির ৫ বছর। জান্নাতুল ফেরদৌস মাটিরাঙ্গা নতুন পাড়া এলাকার আবু তাহেরের ছোট মেয়ে।

মেয়ের পরিবারের দাবী, জান্নাতুল ফেরদৌসকে মাটিরাঙ্গা তার বাবার বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়িতে নিয়ে গিয়ে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে। স্বামী প্রবাসে থাকার সুযোগে শ্বাশুড়ী, দেবরসহ তার পরিবারের লোকজন বিভিন্ন ভাবে নির্যাতন করতো তাকে এমন অভিযোগও করা হয় এতে। বিবাহীত জীবনের ৮-৯ বছর অতিবাহিত হবার পরও কোন সুখ মিলেনি তার ভাগ্যে। পরিবারের পক্ষ থেকে আরো অভিযোগ করা হয়, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যা ওদের বাড়ির পাশে দুই মিনিটের হাসপাতালে না নিয়ে গিয়ে ২৫ কিলোমিটার দূরের মানিকছড়ি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলো কেন? এই অবস্থায় মৃত্যুর আলামত নিয়েও নানান প্রশ্ন দেখা দিচ্ছে। পুলিশ সুষ্ঠ তদন্ত করলে তার রহস্য ও বেড়িয়ে আসবে বলে দাবী অভিযোগকারীদের।

১০ আগস্ট ২০২১ ঘটনার পর-পরই রাত আনুমানিক ১১ টায় জান্নাতুল ফেরদৌস এর ৭ বছরের মাদ্রাসায় পড়ুয়া শিশুটাকে মৃত মায়ের মূখ না দেখিয়ে মাদ্রাসা থেকে বাড়িতে নিয়ে আছে আলী হায়দারের বাড়ির লোকজন । গত ৬ আগস্ট শুক্রবার জান্নাতুল ফেরদৌস তার নিজ বাবার বাড়িতে থেকে শ্বাশুড় বাড়ি আসার জন্য তাগিদ দেয় তার স্বামী হায়দার আলী। এই আসা যাওয়া নিয়ে তাদের ভিতর কথা কাটাকাটি হয় বলে একটি সূত্রে জানায়। স্বামীর কথামতো সে তার শ্বাশুড় বাড়িতে চলে আসার ৪ দিন পরই তার মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এদিকে হায়দার আলী প্রবাসে যেতে গত ৫ তারিখ তার নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে এবং গত ১০ আগস্ট নির্ধারিত প্লাইটে সৌদি চলে যায় বলে তার পারিবারিক সূত্রে জানায়। নিহতের লাশ খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্ত শেষে তার মা-বাবার কাছে লাশ হস্তান্তর করার পর জানাযা শেষে নতুন পাড়া তার নিজ এলাকার কবরস্থানে দাফন করে। দাফন শেষে তার পিতা আবু তাহেরসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে ১১ আগস্ট রাত আনুমানিক ১০ ঘটিকায় গুইমারা থানায় তার মেয়েকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যার দায়ে আবু বক্করসহ ৮ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

আবু বক্করের কাছে মামলা সংক্রান্ত বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, জান্নাতুল ফেরদৌস কিভাবে মারা গেছে সে বিষয় এই মুহুর্তে কোনো বক্তব্য দিতে চাই না। যেহেতু আমাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে তাই যা বলার আদালতে বলবো। জান্নাতুল ফেরদৌস এর মৃত্যুর বিষয়ে গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, মৃত্যু বিষয়টি সর্ম্পকে অবগত হয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিষয়টি নিয়ে গুইমারা থানায় মেয়ের বাবার বাদী হয়ে আবু বক্কর ও ৮ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd