মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৫:১৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
গুইমারাতে চেয়ারম্যান পদে ১১ সংরক্ষিত মহিলা ২৭ ও সদস্য ৭২ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল গুইমারাতে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শেখ রাসেল দিবস পালিত গুইমারা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে শেখ রাসেল দিবস পালিত “খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদে শেখ রাসেল জন্মদিন উদযাপন” খাগড়াছড়িতে শেখ রাসেলের জন্মদিন ও শেখ রাসেল দিবস “উৎসব আনন্দে র‌্যালী ও কেক কেটে জন্মদিন উদযাপন” “পাহাড়কে আবারো অশান্ত করার পাঁয়তারা ” দূর্গম পাহাড়ে গাঁজার সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছে মাদক ব্যবসায়ীরা গুইমারার ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী শানু মুসল্লি ৪ দিন ধরে নিখোঁজ প্রশাসনের নিরবতায়, খাগড়াছড়িতে অবৈধ বালু উত্তোলন অব্যাহত তৃতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচনের ভোট গ্রহন ২৮ নভেম্বর
প্রাণঘাতি মাদকে ধ্বংস যুবসমাজ, বাড়ছে সামাজিক অবক্ষয় “ ইয়াবা কারবারীদের স্বর্গরাজ্য পাহাড়”

প্রাণঘাতি মাদকে ধ্বংস যুবসমাজ, বাড়ছে সামাজিক অবক্ষয় “ ইয়াবা কারবারীদের স্বর্গরাজ্য পাহাড়”

নিজস্ব প্রতিবেদক:: পাহাড়ে ইয়াবা কারবারীদের স্বর্গরাজ্য হিসেবে গড়ে তুলতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে মাদক কারবারীরা। যুব সমাজ ধ্বংসের প্রধান হাতিয়ার নীবর প্রাণঘাতি মাদকের ছড়াছড়ি পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি জুঁড়ে।

খাগড়াছড়ি জেলা সদর থেকে শুরু করে উপজেলা বিস্তৃতি ঘটেছে মরণব্যাধী এই নেশা। কক্সবাজার- চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন সড়কে অভিনব কৌশলে পার্বত্য জেলাগুলোতে ঢুকছে ইয়াবাসহ বিদেশী মদ। মাদকের সাথে জড়িতদের রোধসহ অবৈধ কারবারীদের শনাক্ত এবং নির্মূল করতে না পারাসহ সংশ্লিষ্টদের কঠোর আইনি প্রদক্ষেপ না থাকায় দিনে দিনে এই নেশা ছড়িয়ে যাচ্ছে গ্রাম-গঞ্জেও।

সংগঠনের দুস্কৃতিকারীরা পদ-পদবী ব্যবহার করে স্যাল্টার দেওয়া থেকে এই মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে। তারা নীরবে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে সবখানে। গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ব্যবহার করে অভিনব কৌশলে সুভিধাজনক স্থানে তারা এসব মাদক মজুদ ও সরবরাহের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তথ্য অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে, উপজেলার ব্যাক্তি মালিকানাধীন নীরব পর্যটন স্পর্টে চলে ইয়ারা বেঁচাকেনা ও সেবন কার্যক্রম।

সম্প্রতি খাগড়াছড়ির গুইমারা ও মাটিরাঙ্গা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অভিযানে মাদক উদ্ধার ও জড়িতদের আটকের ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে স্বস্থি ফিরছে। এই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে মাদক নির্র্মূলে দাবী খাগড়াছড়িবাসী। উল্লেখ যোগ্য হারে মাদকের ছড়াছড়িতে আইন-প্রয়োগকারীদের উদাসিনতা মাদক নির্মূলের যাত্রা অনেকটা প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে বলে অভিমত সচেতন সমাজের।

মাদক নির্মূলের বিষয়ে খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী বলেন, সকল প্রশাসনের সম্মিলিত প্রচেষ্টা থাকলে মাদক নির্মূল সম্ভব। প্রয়োজন জনসচেতনতাও। এছাড়াও মাদক কারবারীদের আটকের পর আইনের ফাঁক-ফোঁকড়ে দ্রুত জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার ফলে অপরাধীরা উৎসাহিত হওয়াসহ মাদকের প্রভাব বাড়ছে বলে তিনি মনে করেন।

খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল আজিজ জানান, খাগড়াছড়িতে মাদক নির্মূলে পুলিশের নিয়মিত কার্যক্রম চলমান আছে। সম্প্রতি বিভিন্ন উপজেলায় আটক ও নিয়মিত মামলা রুজুও করা হচ্ছে। কেউ কেউ ইয়াবা সেবনে জন্য নিয়ে আসে। পুলিশ তথ্য পেলেই তাদের আটক করছে। এ বিষয়ে সচেতনতা জরুরী। কোন অপরাধীকে তথ্য পেলে ছাড় দেওয়া হবে না। পাশপাশি আইনি প্রক্রিয়া ও বিচার প্রক্রিয়ায় সংবিধানীক নিয়মে আটককৃতরা ছাড়া পাচ্ছে জানিয়ে মাদকের কারণে সমাজে অস্থিরতা সৃষ্টি বিষয়ে মন্তব্য করে চলমান প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অপরাধী কোন ধরনের ছাড় দেওয়া হবেনা বলে তিনি জানান।

 

 

 

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd