বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস নিয়ে পাল্টা-পাল্টি কর্মসূচি খাগড়াছড়িতে জ্বালানী তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ ‘পাহাড়ের উন্নয়নে সকল সম্প্রদায়ের সম-অংশীদারিত্ব প্রয়োজন’- সাবেক রাষ্ট্রদূত রাঙামাটিতে বঙ্গমাতার ৯২তম জন্মবার্ষিকী পালিত শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে অসহায়দের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন গুইমারায় শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী পালিত মাটিরাঙ্গায় শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী পালিত খাগড়াছড়িতে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের ৯২তম জন্মবাষির্কী পালিত গুইমারায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার ৯২ তম জন্মদিন পালিত হাজী মোহাম্মদ জসিম সভাপতি,মো: আকতার হোসেন সম্পাদক
দূর্গম স্কুলে সেনাবাহিনীর শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ

দূর্গম স্কুলে সেনাবাহিনীর শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি:: খাগড়াছড়ি জেলা সদর উপজেলার ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের দূর্গম সুধন্য কার্বারী পাড়াস্থ তৈসা সামাই বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছেন খাগড়াছড়ি সদর জোন।

মঙ্গলবার(১৯জুলাই)সকালে তৈসা সামাই বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদানের সুবিধার্থে বিদ্যালয়ের প্রতিনিধি প্রধান শিক্ষক সূর্যলাল ত্রিপুরার কাছে শিক্ষকদের বসার জন্য ১৫টি হাই বেঞ্চ ও ১৫টি লো বেঞ্চ মোট ১৫ জোড়া বেঞ্চ বিতরণ করেন।

এ সময় প্রধান খাগড়াছড়ি জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল সাইফুল ইসলাম সুমন এসব শিক্ষা সামগ্রী তুলে দিয়ে বলেন, পাহাড়ে যেকোনো সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে সেনাবাহিনী আছে এবং থাকবে। আমরা আজকে যে স্কুলে পড়ার টেবিল দিয়েছি। এমন কার্যক্রম চলমান আছে আগামীতেও থাকবে। তবে সকল মানুষ এগিয়ে আসলে এমন পিঁছিয়ে পড়া জনপদের শিক্ষার্থীরা অনেকদূর এগিয়ে যেতে পারবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

জানা যায়, প্রত্যন্ত এলাকার ছেলেমেয়ের লেখাপড়ার সুবিধার্থে তৈসা সামাই বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ২০১৭ সালে স্থাপিত হয়। এ বিদ্যালয়ে ৪জন শিক্ষক ক্লাস পরিচালনা করে। শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রথম শ্রেণিতে ৪০জন, দ্বিতীয় শ্রেণিতে ১৯জন, তৃতীয় শ্রেণিতে ১৮জন, চতুর্থ শ্রেণিতে ২২জন ও পঞ্চম শ্রেণিতে ৭জন, মোট ১০৬জন শিক্ষার্থী এ বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছেন।

এ স্কুলে প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন সূর্যলাল ত্রিপুরা,সহকারী শিক্ষক ভূবন মনি ত্রিপুরা,বাবলী ত্রিপুরা ও কৃতান্তি ত্রিপুরাসহ মোট ৪জন বিনা বেতনে পাঠদান দিয়ে যাচ্ছেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জানান, এ বিদ্যালয়ে শিক্ষকেরা বিনা বেতনে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করে আসছেন। আমাদের জন্য সরকারিভাবে সম্মানী ভাতা বা বেতন প্রদানের ব্যবস্থা করলে আমরা কিছুটা হলেও অর্থনৈতিক দুর্দশা থেকে মুক্তি পাবো। তিনি স্কুল উন্নয়নের জন্য সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন প্রধান শিক্ষক সূর্যলাল ত্রিপুরা।

 

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd