শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:২৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
মাল্টিপ্লাগে বিদ্যুতায়িত হয়ে শিশুর মৃত্যু গুইমারায় শহিদ লেঃ মুশফিক সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ে অভিভাবক ও শিক্ষকদের মতবিনিময় সভা প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির পরস্পর বিরোধী অভিযোগের তদন্ত শুরু! সাজেকে মাইক্রোবাস উল্টে পুলিশ সদস্যসহ ৯ পর্যটক আহত জলের নিচে রাঙামাটির ঝুলন্ত সেতু গুইমারায় সেনা অভিযানে একজনকে অস্ত্রসহ আটক মাটিরাঙার গোমতি বিদ্যালয়ের কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক পরস্পর বিরুধী অভিযোগ খাগড়াছড়িতে করোনা প্রতিরোধে সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করোনার সংক্রমণে সচেতন আবশ্যক গুইমারায় সেনাবাহিনীর মতবিনিময় সভা এলজিইডি উন্নয়ন কার্যক্রম “ধারাবাহিক উন্নয়নে বাড়ছে স্বস্থি” কমছে জনভোগান্তি
গুইমারায় অসহায় ব্যাক্তির ভূমি দখলের অভিযোগ

গুইমারায় অসহায় ব্যাক্তির ভূমি দখলের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার গুইমারা উপজেলার বাসিন্দা হ্লাচাই মারমা, দিদারুল আলম ও নাছির উদ্দিন মানিক সহ ৩জনে মিলে এক অসহায় ব্যাক্তির ভূমি জোর পূর্বক দখলের অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, গুইমারা সদর ইউনিয়নের বাজার পাড়ার বাসিন্দা ইদ্রিস মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম এর ১৯৭ নং গুইমারা মৌজায় ২১০নং খতিয়ানের ৬৭৭/৭০৫/৬০৬ দাগের অন্তরর্ভুক্ত ১.একর ২০ বিশ শতক (এক একর বিশ শতক) জায়গা রেকর্ডভুক্ত আছে। যা রফিকুল ইসলামের ভোগ দখলে রয়েছে।

এদিকে রফিকুল ইসলাম ও তার পিতার নামে পাশ্ববর্তী উল্লেখিত দাগের ১৯৮৩-৮৪ সালের বন্দোবস্তি মামলা নং-৭৫ মূলে আরো ২ (দুই একর) টিলাভূমি বন্দোবস্তির আবেদন মূলে টু-ডিসির প্রতিবেদন প্রাপ্ত হয়।

এদিকে, প্রায় ১ বছর আগে থেকে হ্লাচাই মারমা এই জমি দখলের ষড়যন্ত্রে মেতে উঠে। ইতিপূর্বে অভিযুক্ত হ্লাচাই মারমা,দিদারুল আলম ও নাছির উদ্দিন মানিক রাতের আধারে জায়গা দখল করে আংশিক জায়গার উপর টেনসেড ঘর নির্মান করেন এবং পানি সংস্কারের জায়গা বন্ধ করে দেন। এবং বিভিন্ন ভাবে হুমকি দেয়।

অভিযোগকারী রফিকুল ইসলাম বলেন, অভিযুক্ত ব্যাক্তিগণ অনেকের সাথেই জায়গা দখলসহ বিভিন্ন অনৈতিক কাজের সাথে জড়িত রয়েছে বলে তিনি দাবী করেন। তাদের অতিথের এমন কর্মকাণ্ডে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। অভিযোগকারী নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন এবং ন্যায় বিচার পাওয়ার দাবী করে গুইমারা প্রেস ক্লাবসহ বিভিন্ন সংস্থার নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা যায়, রফিকুল ইসলামের জায়গায় হ্লাচাই মারমা,দিদারুল আলম,নাছির উদ্দিন মানিকের কাছে অবৈধ দখল সংক্রান্ত বিষয় জানতে চাইলে মানিক বলেন ম্রাথোয়াই মগ পিতা রূইম্রাচাই মগের ওয়ারিশ হ্লাচাই মারমার নিকট থেকে ১০ ডে: জায়গা দখলশর্তে ক্রয় করেছি। পরে সে জায়গা দিদারুল আলমের কাছে বিক্রি করেছি।

অপর দিকে, জমির মালিকের দাবী ম্রাথোয়াই মগ পিতা রূইম্রাচাই মগের ১৯৮৩ সালে ৩ দাগের ১ একর ২০ ডে: জায়গা রেকর্ড ভুক্ত আছে এবং ৩ দাগের পুরো জায়গায় ম্রাথোয়াই মগ বিক্রয় করেছে ক্রয় সুত্রে ইদ্রিস মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম মালিক এবং রেজিষ্টিকৃত দলীলও রয়েছে।

অভিযোগ সংক্রান্ত বিষয় উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা তুষার আহম্মদের বলেন, রফিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি লিখিত একটি অভিযোগ করেছেন।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd