শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০২:৫১ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে নীতিমালা হচ্ছে… ৬ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত বন্ধ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অবৈধ ইটভাটা বন্ধের নিদের্শ পুলিশের অভিযানে পেটের ভেতর ইয়াবাহসহ ৩জন আটক মানিকছড়ি-লক্ষ্মীছড়ি সড়কে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে ট্রাক গাছে নিয়ন্ত্রণহীন ট্রাকের ধাক্কা: বাবা-ছেলের মৃত্যু খাগড়াছড়ি ইউনিট কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এর সভা বার বার জরিমানা করার পরও থামছে না অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও মাটিকাটা মহালছড়িতে সেনাবাহিনী ও খাগড়াছড়ি লেডিস ক্লাবের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ মানিকছড়িতে জেলা পরিষদের উদ্যোগে ক্রীয়া সামগ্রী বিতরণ
পাহাড়ি এলাকায় লকডাউনে পশুরহাটে মানছেনা কোনো সাস্থবিধি

পাহাড়ি এলাকায় লকডাউনে পশুরহাটে মানছেনা কোনো সাস্থবিধি

নুরুলআলম:  লকডাউনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য প্রশাসনের প্রচার-প্রচারণা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকলেও খাগড়াছাড়ি জেলার হাট-বাজারগুলোর ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে সচেতনতা নেই। প্রশাসনের অভিযানের কথা শুনলেই মাস্ক পরাসহ অন্য বিষয়ে সচেতন হয়ে উঠেন বাজারের ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা। প্রশাসনের লোকজন ফিরে গেলে আবার আগের অবস্থায় ফিরে যান তারা। দোকান-পাট, এনজিওসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানগুলোতেও সঠিকভাবে কেউ স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। এমনকি সরকারি নির্দেশ অমান্য করে খোলা হচ্ছে দোকান-পাট।

সরেজমিনে দেখা গেছে, খাগড়াছড়ি জেলার গরুর হাটগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনও বালাই ছিল না। হাটে আসা বেশিরভাগ ক্রেতা-বিক্রেতার মুখে মাস্ক দেখা যায়নি। এছাড়া  জেলার খাগড়াছড়ি, মাটিরাঙ্গা, গুইমারা, মানিকছড়ি, রামগড় সহ বিভিন্ন বাজারে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি।

ইতিমধ্যে জেলাপ্রসাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস মাটিরাঙ্গা উপজেলার করোনা বিষয়ক সচতেনতামূল্যক অনুষ্ঠানে বলেন প্রতিটি বাজারে ১জন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাজারগুলো তদারকি করবে। যারা সাস্থবিধি মানবেনা তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহন করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এ নির্দেশনার পরেও মানা হচ্ছেনা সাস্থবিধি গত মোঙ্গলবার ১৩ জুলা্ই ২০২১ গুইমারা বাজার পরিদর্শ্ন করে দেখা যায় লোকজনের ভির ও সাস্থবিধির তোয়াক্কা না করে গুইমারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বসেছে পশুর হাট, মানা হচ্ছে না কোনো সাস্থবিধি। আরো অনিয়ম রয়েছে রাজস্ব আদায়েও। ব্যবসায়ি দের থেকে গরুক্রয় বিক্রয়ে রাজস্ব ও সাধারন ক্রেতা থেকে ভিন্ন লক্ষ করা গেছে, এসব নিয়ে বাজারে রাজস্ব আদায় কালে বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটেছে বলে জানাগেছে।
সাধারন ক্রেতাদের দাবি রাজস্ব আদায়ে ব্রবসায়ি ও সাধারন ক্রেতাদের রাজস্ব সমান হারে গ্রহন করা উচিত।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd