রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
খাগড়াছড়িতে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ রামগড়ের প্রবীন ব্যক্তিত্ব মংক্যচিং চৌধুরী’র মৃত্যুতে শোক জয় নিশ্চিতে সরব আ’লীগ,নীরবে সক্রিয় স্বতন্ত্ররা প্রত্যান্ত জনপদে বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা করলো ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক মহালছড়িতে উৎস-আমেজে সরগরম নৌকার মাঠ গুইমারায় সেনাবাহিনীর অভিযানে ১৮ লাখ টাকার ভারতীয় ঔষধ জব্দ “খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সু-চিকিৎসা’র দাবী না মানলে গণআন্দোলন” মানবতার সেবায় এগিয়ে আসাটাই জীবনের স্বার্থকতা প্রত্যন্ত পাহাড়ী অঞ্চলের জনসাধারণের মাঝে বিনা মূলে চিকিৎসা সেবা প্রদান গুইমারা প্রেসক্লাব এর নেতৃবৃন্দদের সাথে ৩ ইউপি নির্বাচিত চেয়ারম্যানদের মতবিনিময়
মাটিরাঙ্গায় চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

মাটিরাঙ্গায় চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:: খাগড়াছড়ি জেলাসহ বিভিন্ন উপজেলায় ডাক্তারদের চিকিৎসায় অবহেলার কারনে মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। এছাড়াও হাসপাতালে ডাক্তারা প্রাইভেট চিকিৎসার বিভিন্ন ক্লিনিক এ অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকায় রোগীরা সু-চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এমটি একটি ঘটনা ঘটেছে মাটিরাঙ্গায় চিকিৎসকের অবহেলায় জিয়া মোল্লা নামের এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তিনি মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মুসলিমপাড়া এলাকার বাসিন্দা। বুধবার (৩ নভেম্বর) বিকালের দিকে জেলার মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় নিহতের স্বজনেরা বেলা চারটা থেকে সাড়ে পাচঁটা পযর্ন্ত হাসপাতালের কতর্ব্যরত চিকিৎসক উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (সেকমো) দিপঙ্কর ধর ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. খায়রুল আলমকে দেড় ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। তারা কর্তব্যে অবহেলায় দিপঙ্কর ধরসহ এ দুই চিকিৎকের অপসারন দাবি করে।

নিহত জিয়াউল হক প্রকাশ জিয়া মোল্লার ছেলে মো. আল আমিন বলেন, দুপুরের দিকে আমার বাবা অসুস্থ হয়ে পড়লে আমরা তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসি। এসময় ইমারজেন্সিতে উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (সেকমো) দিপঙ্কর ধর কর্তব্যরত ছিলেন। তখন তিনি আমার বাবার চিকিৎসা না করে মোবাইল ফোনে কথা বলেন। আমার বাবার খুব শ্বাসকষ্ট হলে আমি বার বার চিকিৎসা দেয়ার অনুরোধ করলে তিনি ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’ বলেন। ইমারজেন্সী রুমে গ্যাস সিলিন্ডার থাকলেও তিনি আমার বাবাকে অক্সিজেন দেননি। আমি মাস্ক নিয়ে আসলে তিনি আমার বাবাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। বাবাকে হাসপাতালের বেডে নিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে তিনি মারা যান।

এদিকে জিয়াউল হক প্রকাশ জিয়া মোল্লার মৃত্যুর খবরে তার স্বজনসহ স্থানীয়রা হাসপাতালে ভীর করে। এসময় তারা তার মৃত্যুর জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসককে দায়ী করে তার শাস্তি দাবি করেন। খবর পেয়ে সেনাবাহিনী ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এসময় হাসপাতালে ছুটেযান মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো শামছুল হক।

মাটিরাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আলী বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ফোর্স নিয়ে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। এসময় নিহতের স্বজনসহ চিকিৎসকের সাথে কথা বলেছি।

অভিযুক্ত চিকিৎসক দীপঙ্কর ধর চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, রোগীর কন্ডিশন খুবই খারাপ ছিল। তখন ইমারজেন্সীতেও আরো তিনজন চিকিৎসক উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. খায়রুল আলম বলেন, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা হয়েছে। দায়িত্ব পালনে গাফেলতি থাকলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd