শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০২:৪৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
রাঙ্গামাটি জেলায় আ’লীগের সম্মেলন রাজনৈতিক অঙ্গনে উত্তাপ্ত পার্বত্য চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির প্রথম নারী জেলা প্রশাসক শ্রাবস্তী রায় “পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন ও জুম্ম জাতির অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবী” কর্ণফুলী নদীতে এখনও ফেরি, সেতু না হওয়ায় যাত্রীদুর্ভোগ চরমে বীর মুক্তিযোদ্ধা রেফায়েত উল্লাহকে গার্ড অব অনার প্রদান রামগড় উপজেলা বিএনপি ও পৌর বিএনপির কাউন্সিল সম্পন্ন গুইমারা উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থীতা বাছাই সম্পন্ন- বাতিল ২ মহালছড়িতে সরকারি টাকা নিয়ে উধাও নিরাপত্তা প্রহরীর কাপ্তাই পিডিবি এলাকায় যাত্রী ছাউনী ও নবনির্মিত রাস্তার উদ্বোধন নানিয়ারচরে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল ও পুরষ্কার বিতরণ
প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরসহ রাস্তারঘাট নির্মানের কাজে তদারকি করছে

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরসহ রাস্তারঘাট নির্মানের কাজে তদারকি করছে

গুইমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তুষার আহম্মেদ

নুরুল আলম: খাগড়াছড়ি জেলাধীন গুইমারা উপজেলার ইউএনও মো: তুষার আহম্মেদ নিজে তদারকি করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার স্থানীয় অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করছেন। তিনি স্ব-শরীরে নিজে গিয়ে যাচাই-বাছাই করে, প্রকৃত অর্থে যারা আর্থিক ভাবে স্বাবলম্বী নন ও বসবাস করার জন্য উপযুক্ত ঘর নেই তাদের মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে প্রাপ্ত ঘর বিতরণ করেন।

এছাড়াও অসহায়দের মাঝে কম্বল বিতরণ, রাস্তাঘাট নির্মাণ সহকারে সকল উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ডে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। ওনি আশার পর থেকে গরিব নিরিহ মানুষদের খোজ খবর নিচ্ছে প্রত্যন্ত অঞ্চলে যাচ্ছে পাহাড়ি বাঙালি সকলকেই সমান দৃষ্টিতে দেখছে বলে এলাকাবাসী মনে করেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক উপজাতীয় হতদরিদ্র ব্যক্তি বলেন, তাদের দুঃখ সুখের খবর নিতে বাসায় এসেছে। এর আগে কখনো কোনো সরকারি কর্মকর্তা এভাবে খোজ খবর নিতে আসেনি। সৃষ্টিকর্তা ওনাকে ভালো রাখুক।
তিনি অসহায় ও দারিদ্রতা নিশ্চিত করার জন্য ও দূর্নীতি এড়াতে অসহায় ও দরিদ্রদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তার সত্যতা যাচাই করেন। তার সাথে তাদের আয়ের উৎস সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, ”বর্তমান সময়ে দূর্নীতি অহরাহর ঘটছে, যার কারণে আমি নিজে তদারকি করে প্রকৃত অর্থে যারা গরীব অসহায় তাদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ করার জন্য এমন পদক্ষেপ নিয়েছি। যাতে করে কেউ প্রতারিত না হন এবং কারো কাছ থেকে যেন কোনো ব্যক্তি এটাকে পুঁজি করে অবৈধ অর্থ দাবি করতে না পারে সেদিকেও তাদের সচেতন করছি, এমন কোনো ঘটনা ঘটলে যেন সাথে সাথে আমাকে তারা জানায় সেটিও তাদের জানিয়েছি।
কিন্তু দেখা যায়, সমাজের কিছু লোক এ সম্পর্কে নানা ধরনের মন্তব্য করেন। যাতে বোঝা যায়, উপজেলা প্রশাসনের উক্ত কাজ দ্বারা তারা নিজেরা খুবই ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। আবার অনেকে এ কাজের প্রশংসা ও করেছেন। তারা মনে করেন, উক্ত পদক্ষেপের কারণে সমাজের অসহায় ও দরিদ্ররা বিশেষ ভাবে উপকৃত হয়েছে এবং দূর্নীতির সম্ভাবনাও হ্রাস পেয়েছে। আশা করা যায়, উক্ত কাজের মাধ্যমে সমাজের অসহায় ও দরিদ্র যারা রয়েছেন তারা নিশ্চিন্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার পেতে সক্ষম হবেন।

 

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd