বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৪:৫৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
তুমব্রুর পর মর্টারশেলের শব্দে কেঁপে উঠল জামছড়ি পাহাড় ধসে খাগড়াছড়ি-সাজেক সড়কে কয়েক হাজার পর্যটক আটকা দীঘিনালায় সেনাবাহিনীর উদ্যোগে পাঁচ শতাধিক রোগীকে চক্ষু চিকিৎসা ও ঔষধ বিতরণ মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিশৃঙ্খলায় ক্ষতির সম্মুখীন বাংলাদেশ গুইমারাতে জাতীয় কন্যাশিশু দিবস ২০২২ উদযাপন খাগড়াছড়িতে শারদীয় দুর্গোৎসবে গুইমারা সেনা রিজিয়নের সহায়তা ও শুভেচ্ছা বিনিময় পাহাড়ে সকল সম্প্রদায়ের ঐক্যবদ্ধ সহাবস্থান শান্তি-সম্প্রীতির উদাহরণ ২৩ প্রকল্পের কাজ না করে ভূয়া বিল দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ পাহাড়ের তিন ফুটবল কণ্যা ও সহকারি কোচকে পুনাকের সংবর্ধনা খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত

গুইমারায় অবৈধ ভাবে ফসলী জমি কাটার মহাৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক: নিয়ম-নীতি অমান্য গুইমারায় অবৈধ ভাবে ফসলী জমি কাটার মহাৎসব চলছে। গুইমারা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ফসলী জমি কাটার অভিযোগ উঠেছে। গুইমারার হাফছড়ি, জালিয়াপাড়া, সিন্দুকছড়ি। আবার রামগড়ের বিভিন্্ন স্থানে স্কেভেটর দিয়ে ফসলী জমি কেটে মাটি বিক্রয়ে মহাৎসব চলছে। এসকল মাটি কেটে নেওয়া হচ্ছে, তারা ব্রিগফিল্ড, এস বি এম, ৪ স্টার, মদিনা ব্রিগফিল্ডসহ আরো কয়েকটি ব্রিগফিল্ডে।

সিন্দুকছড়ির বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন স্থানে ফসলী জমি কেটে মাটি ট্্রাকে করে ব্রিকফিল্ডের কাজে ব্যবহার করছে এবং কোনো কোনো স্থানে নিচা জায়গা ভরাট করছে। এতে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে সরকার হাড়াচ্ছে বিপুল পরিমান রাজস্ব। এছাড়াও আসছে বর্ষার মৌসুমে পাহাড়ের পাশে বসবাসরত মানুষের জীবনের ঝুকিঁ ও বাড়ছে।

ফসলী জমি কাটার বিষয় সিন্দুকছড়ি চেয়ারম্যান রেদাক মারমা সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, উচু নিচু জায়গায় গুলোকে মাটি ভরাট করে জমিগুলোকে চাষাবাদীর উপযোগি করা হচ্ছে। এছাড়াও কিছু মাটি ব্রিগফিল্ডের কাজেও ব্যবহার করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

এস বি এম ব্রিগফিল্ডের মালিক শহীদ কোম্পানি জাতীয় দৈনিক পত্রিকার এই প্রতিনিধিকে বলেন, ব্রিগফিল্ডের ইট তৈরির ফলে এলাকার উন্নয়ন কাজ করা সম্ভব হচ্ছে। ব্রিগফিল্ড বন্ধ হয়ে গেলে আপনার আমার ঘর ও দালান নির্মাণ ব্যহত হবে বলে জানান। তিনি আরো বলেন, সরকার এমনভাবে ইটের ভাটার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে তাতে করে ইটভাটার মালিকদের ব্যপক ভাবে ক্ষতি সাধিত হবে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গুইমারা উপজেলা চিংগুলীপাড়া সহ বিভিন্ন স্থানে নির্বিচারে ফসলী জমি থেকে মাটি কাটা হচ্ছে। বিভিন্ন অযুহাত দেখিয়ে মাটি কেটে তা সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে ব্রিগফিল্ডে সহ বিভিন্ন স্থানে।

সচেতনমহল জানান, এসকল অবৈধ কর্মকান্ডের কারণে, পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে তার সাথে সাথে সরকার হাড়াচ্ছে রাজস্ব। এসকল অবৈধ কর্মকান্ড বন্ধ না হলে অচিরেই ধ্বসে পরবে পার্বত্য অঞ্চলের সুন্দর্য্যরে পাহাড় বিপর্যয়ের মুখে পরবে সাধারণ মানুষ। তাই এসকল অবৈধ কর্মকান্ড বন্ধের দাবি করেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd