বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৩৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
খাগড়ছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত কাপ্তাই অসহায় ও দুস্থদের মাঝে চিকিৎসা সহায়তা প্রদান জেল থেকে পরিক্ষা দিয়ে পানছড়ির আরিফুলের এসএসসি পাশ অবৈধ কাঠ পাচারে বনবিভাগের নেই কোন বাধাঁ গুইমারায় সড়কে যুবকের গলাকাটা লাশ গুইমারায় পার্বত্য শান্তি চুক্তির রজত জয়ন্তী বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপন পাহাড়ে বর্ণিল সাজে শান্তিচুক্তি’র রজত জয়ন্তী উদযাপন শান্তি চুক্তির রজতজয়ন্তী উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে বিভিন্ন কর্মসূচির উদ্বোধন খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চুক্তি সংশোধনের দাবিতে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সংবাদ সম্মেলন মাটিরাঙ্গায় আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সাধারণ সভা

“রাজস্থলী-চন্দ্রঘোনা সড়ক যেন মরণফাঁদ”

গত তিন মাসে এই সড়কে ঝরল ছয় জনের প্রাণ

রাঙ্গামাটি প্রতিবেদক:: রাঙামাটি পার্বত্য জেলার রাজস্থলী-চন্দ্রঘোনা সড়ক যেন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রায়সময় এই সড়কে ঘটছে মারাত্মক দুর্ঘটনা। গত ৩ মাসে এই সড়কে ৬ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া ২০ জনের অধিক পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে। তাছাড়া রাজস্থলী – চন্দ্রঘোনা সড়কে অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সড়কের পাশে হওয়াতে চলাচলে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকেরা।

তবে সড়কের এই অংশে দুর্ঘটনার বেশ কিছু কারণ চিহ্নিত করেছে পুলিশ। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সড়ক আইন অমান্য করে বেপরোয়া গতিতে গাড়ী চালানো, অদক্ষ্য ও লাইসেন্স বিহীন চালক (অধিকাংশ ক্ষেত্রে সহকারির হাতে গাড়ী থাকা), নিয়ম ভঙ্গ করে গাড়ি ওভার লোডিং, ওভার টেকিংয়ের প্রবণতা, চালকদের দীর্ঘক্ষণ বিরামহীন গতিতে গাড়ী চালানো, সড়ক আইন যথাযথ ভাবে অনুসরণ না করা, ফিটনেস বিহীন গাড়ি চলাচল এবং ঝুঁকিপূর্ণ আঁকা বাঁক সহ চলাচলের অনুপযোগী সড়ক। তাই প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা।

চন্দ্রঘোনা ও রাজস্থলী থানার পুলিশের তথ্যানুসারে জানা গেছে, চলতি বছরের গত তিন মাসে রাজস্থলী, বাঙালহালিয়া, চন্দ্রঘোনা সড়কে ছোট বড় ১০ থেকে ১২ টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এ সব দুর্ঘটনায় যাত্রী চালক ও চালকের সহকারী সহ ৬ জনের প্রাণহানী হয়েছে এবং ২০জনের অধিক মানুষ আহত হয়েছে। এ সব ঘটনায় ৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তথ্য অনুসন্ধানে জানাযায়, শুধু গত মার্চ মাসেই রাজস্থলী সড়কে ট্রাক – মাহিন্দ্রা মুখোমুখি সংর্ঘষে ২ জন নিহত ও ৩ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়। তাছাড়া সম্প্রতি চন্দ্রঘোনা ফেরীঘাঠে সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামী-স্ত্রী সহ ২ জনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

তবে পথচারী ও সাধারন মানুষের অভিযোগ, বেপরোয়া ও অনিয়ন্ত্রিতভাবে গাড়ী চালানো মাত্রাতিরিক্ত গতি ও অভারটেকিং প্রতিযোগিতা, চালকদের মাতাল অবস্থায় গাড়ী চালানো, সড়ক আইন না মানা সহ বিভিন্ন অপরাধে গাড়ি চালকেরা জড়িত থাকলেও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন কিংবা কর্তৃপক্ষ দুর্ঘটনা রোধে তেমন কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। যার ফলে সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব হচ্ছেনা।

বাঙালহালিয়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমবায় সমিতির সভাপতি শামসুল আলম জানান, বাঙালহালিয়া, পদুয়া রাজারহাট ও রাজস্থলী সড়কে দিন দিন বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা।

বাঙালহালিয়া পুলিশ ফাঁড়ির উপ পরিদর্শক কামরুজামান জানান, রাজস্থলী-চন্দ্রঘোনা সড়কে চালককের ওভারস্পিড, ওভারটেক ও ওভারলোডের কারণে বিভিন্ন সময়ে এই সড়কে দুর্ঘটনা বাড়ছে। এসবের নেপথ্যে রয়েছে অধিকাংশ চালকের দুর্বলতা। বেশী টাকা উপার্জন ও একাধিক ট্রিপ মারতে ঘুমচোখে গাড়ী চালানো এবং ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত পণ্য বহন করতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটছে।

এ বিষয়ে রাজস্থলী থানার ওসি জাকির হোসেন জানান, সড়ক দুর্ঘটনার প্রতিরোধে গত কয়েক দিন আগে পুলিশের উদ্যোগে সাঁড়াশি অভিযান শুরু হয়েছে। ঈদ কে সামনে রোখে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে চালকদের সচেতন করতে এবং যাত্রা নিরাপদ করতে তারা এই তৎপরতা শুরু করেছেন। বিভিন্ন সময় অভিযান কালে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে লাইসেন্সবিহীন গাড়ীর বিরুদ্ধে মামলা, অনুমোদনহীন যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা সহ নানামুখী কর্মতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে তিনি জানান।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd