সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ০৮:৫৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
খাগড়াছড়িতে শারদীয় দুর্গোৎসবে গুইমারা সেনা রিজিয়নের সহায়তা ও শুভেচ্ছা বিনিময় পাহাড়ে সকল সম্প্রদায়ের ঐক্যবদ্ধ সহাবস্থান শান্তি-সম্প্রীতির উদাহরণ ২৩ প্রকল্পের কাজ না করে ভূয়া বিল দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ পাহাড়ের তিন ফুটবল কণ্যা ও সহকারি কোচকে পুনাকের সংবর্ধনা খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত প্রকল্পের কাজ না করে ভূয়া বিল ভাউচার দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে শারদীয় দূর্গোৎসব আনন্দ মুখোর করে তোলার আহ্বান কাউখালীর ঘাগড়ায় লরির ধাক্কায় শিশু নিহত শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে খাগড়াছড়ি রিজিয়নের আর্থিক অনুদান প্রদান খাগড়াছড়িতে ভালোবাসায় সিক্ত হলো সাফজয়ী তিন কৃতি ফুটবলার
ভারীবর্ষণে পাহাড় ধ্বসের আশঙ্কায় নানিয়ারচরে প্রশাসনের সচেতনতামূলক অভিযান

ভারীবর্ষণে পাহাড় ধ্বসের আশঙ্কায় নানিয়ারচরে প্রশাসনের সচেতনতামূলক অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদক:: গত বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া টানা ভারীবর্ষণে পাহাড় ধ্বসের আশঙ্কায় সচেতনতামূলক অভিযান পরিচালনা করেছে রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলা প্রশাসন।

রোববার (১৯শে জুন) সকালে উপজেলার ইসলামপুর, বগাছড়ি, ঘিলাছড়ি ও বুড়িঘাট ইউনিয়নের আশ্রয়ণ কেন্দ্র ও পাহাড়ি ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসতবাড়িসমূহ পরিদর্শন করেন, নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ফজলুর রহমান।

এসময় নানিয়ারচর সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বাপ্পি চাকমা, ঘিলাছড়ি ইউনিয়ন প্যানেল চেয়ারম্যান বাসন্তি চাকমা, বুড়িঘাট ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মোস্তফা খান ও মিজানুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা সূত্রে জানা যায়, ইতোমধ্যে উপজেলার ইসলামপুর দাখিল মাদ্রাসা আশ্রয়ণ কেন্দ্রে ৫টি, বগাছড়ি পুর্নবাসন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪টি ও বুড়িঘাট পুর্নবাসন আশ্রয়ণ কেন্দ্রে ৬টি পরিবার আশ্রয় গ্রহণ করেছে।

এবিষয়ে ফজলুর রহমান জানান, আশ্রিত এসব পরিবারের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপদ পানীয় ও শুকনা খাবার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাসমূহে দ্রুত নিরাপদ আশ্রয়ণ কেন্দ্রে আশ্রয় গ্রহণের জন্য মাইকিং প্রচারণা করা হচ্ছে বলেও জানান এই নির্বাহী কর্মকর্তা।

এদিকে নানিয়ারচর উপজেলা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর থেকে জানায়, নানিয়ারচর উপজেলার প্রতিটি এলাকার প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহকে আশ্রয়ণ কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আশ্রয়ণ কেন্দ্রসমূহে শুকনা খাবার, নিরাপদ পানি ও আলোর ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন সুবিধা রাখা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার বাসিন্দারা নিরাপদে আশ্রয়ণ কেন্দ্রে আশ্রয় গ্রহণ করতে মাইকিং প্রচারণা চলমান রয়েছে।

উল্লেখ্য সচেতনতামূলক অভিযান পরিচালনাকালে নির্বাহী অফিসার পাহাড় ধ্বসে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাসমূহে মাইকিং প্রচারণার মাধ্যমে এলাকাবাসীকে দ্রুত নিরাপদ আশ্রয়ণ কেন্দ্রে আশ্রয় গ্রহণ করতে আহ্বান জানান।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd