রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০১:০৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
পাহাড়ের তিন ফুটবল কণ্যা ও সহকারি কোচকে পুনাকের সংবর্ধনা খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত প্রকল্পের কাজ না করে ভূয়া বিল ভাউচার দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে শারদীয় দূর্গোৎসব আনন্দ মুখোর করে তোলার আহ্বান কাউখালীর ঘাগড়ায় লরির ধাক্কায় শিশু নিহত শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে খাগড়াছড়ি রিজিয়নের আর্থিক অনুদান প্রদান খাগড়াছড়িতে ভালোবাসায় সিক্ত হলো সাফজয়ী তিন কৃতি ফুটবলার মানিকছড়িতে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক স্বল্পতা ও বিদ্যুতের লো-ভোল্টেজে পাঠদান ব্যাহত খাগড়াছড়িতে ৩ কৃতি নারী ফুটবলার ও কোচকে বরণ কাল খাগড়াছড়িতে নানা আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপন
শিক্ষা অফিসারের মারধরে হাসপাতালে প্রধান শিক্ষিকা

শিক্ষা অফিসারের মারধরে হাসপাতালে প্রধান শিক্ষিকা

নিজস্ব প্রতিবেদক,খাগড়াছড়ি:: খাগড়াছড়িতে এক প্রধান শিক্ষিকাকে পিটিয়েছে সদর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার সুভায়ন খীসা। ঘটনার পর আহত শিক্ষিকা মৌসুমী ত্রিপুরাকে (৪৪) খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট ২০২২) বেলা ১২টার দিকে উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসারের কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

মৌসুমী ত্রিপুরা খাগড়াছড়ি সদরের মহালছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মৌসুমী ত্রিপুরা বলেন, সকালে বিদ্যালয়ের ভাঙা গেইট মেরামতের আবেদন নিয়ে সহকারী শিক্ষা অফিসার সুভায়ন খীসার কার্যালয়ে গিয়েছিলাম। দীর্ঘ সময়েও তিনি আমার বিষয়টি নিয়ে কথা না বলায় তার দৃষ্টি আকর্ষণ করি। এসময় ক্ষুব্দ হয়ে তিনি আমার উপর অতর্কিতভাবে কিল ঘুষি মারতে থাকেন। পরে অফিসের অন্যরা আমাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

খাগড়াছড়ি আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মিথিলা বড়ুয়া বলেন, রোগীর (মৌসুমী ত্রিপুরা) বা চোখের নিচে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। সেখানে দুটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। এছাড়া তার মাথায় ব্যাথা আছে। আমরা তাকে ভর্তি করেছি।

সহকারী শিক্ষা অফিসার সুভায়ন খীসা বলেন, তিনি (শিক্ষিকা) অফিসে এসে আমার হাত-গলা ধরে দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেন। এসময় তাকে আমি অপেশাদার আচরণ করতে নিষেধ করি। এই নিয়ে বাদানুবাদের এক পর্যায়ে ধাক্কাধাক্কিতে তিনি দরজায় আঘাত পান। অন্যদিকে মৌসুমী ত্রিপুরা তাকে নিজের স্বামী দাবি করলেও সুভায়ন খীসা বিষয়টি অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে খাগড়াছড়ি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন বলেন, এ ঘটনায় যে জড়িত থাকবে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd