বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৪:৪১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিশৃঙ্খলায় ক্ষতির সম্মুখীন বাংলাদেশ গুইমারাতে জাতীয় কন্যাশিশু দিবস ২০২২ উদযাপন খাগড়াছড়িতে শারদীয় দুর্গোৎসবে গুইমারা সেনা রিজিয়নের সহায়তা ও শুভেচ্ছা বিনিময় পাহাড়ে সকল সম্প্রদায়ের ঐক্যবদ্ধ সহাবস্থান শান্তি-সম্প্রীতির উদাহরণ ২৩ প্রকল্পের কাজ না করে ভূয়া বিল দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ পাহাড়ের তিন ফুটবল কণ্যা ও সহকারি কোচকে পুনাকের সংবর্ধনা খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত প্রকল্পের কাজ না করে ভূয়া বিল ভাউচার দেখিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে শারদীয় দূর্গোৎসব আনন্দ মুখোর করে তোলার আহ্বান কাউখালীর ঘাগড়ায় লরির ধাক্কায় শিশু নিহত

“মুক্তিযোদ্ধা শাহাদাতের শখের বাগান”

নিজস্ব প্রতিবেদক, কাপ্তাই::-হাতের নিপুণ ছোঁয়া আর মমতায় গড়ে তোলা শখের বাগানে বেশ ভালো সময় পার করছেন কাপ্তাই উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শাহাদাত হোসেন চৌধুরী। সম্প্রতি ওই বাগানে গিয়ে দেখা যায়, নিজ বাড়ির সামনে মনোরম সুন্দর পরিবেশে বাগান তৈরি করেছেন তিনি। যেই বাগানে রয়েছে শতাধিক ফলজ, বনজ, ঔষধি সহ হারেক রকম দেশী-বিদেশী ফুল গাছ। ইতিমধ্যে বিভিন্ন গাছে অনেক সুন্দর ফুল-ফলের দেখাও মিলেছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাদাত হোসেন চৌধুরী জানান, ছাত্রজীবন থেকেই তিনি পিতার আদর্শ নিয়ে বাগান পরিচর্যার বিষয়ে আগ্রহী হয়েছেন। পরবর্তীতে ১৯৯৫ সালে যখন তিনি কাপ্তাই চন্দ্রঘোনাস্থ মিতিংগাছড়ি এলাকায় বাড়ি তৈরির কাজ শুরু করেন, তখনই বাড়ির সামনের খালি জায়গাটিতে বাগান করার চিন্তা করেন। তৎকালীন সময়ে তিনি কিছু গাছের চারা সংগ্রহ করে রোপণ করলেও বর্তমানে এই বাগানে রয়েছে দেশী-বিদেশী শতাধিক গাছ।

এবিষয়ে আলাপ কালে তিনি জানান, শখের বাগানটিতে প্রায় ৭৫ রকমের ফুল গাছ রয়েছে। তার মধ্যে উল্লে¬খযোগ্য হলো পলাশ, মহুয়া, নাগলিঙ্গম, কামিনি, টগর, রাজমুকুট, নীলপারুল, বাগানবিলাস, কাঠগোলাপ, অলকানন্দা, বেলী, গোলাপ, রোজ কেকটাস, কাঁঠালি চাপা, গন্ধরাজ, চেরী, সন্ধামালতি, রক্তকবরী, মাধবীলতা, শিবজটা, হাসনাহেনা সহ বিভিন্ন নামের দেশীয় ফুল গাছের সমাহার। পাশাপাশি রয়েছে বিদেশী জাতের রেটলাইয়ন লিলি, ফায়ারবল লিলি, লাকি বেম্বো, ড্রেসিনা, রেইনলিলি, জাগুসলিলি, নাইটকুইন, এরোমেটিক জুঁই সহ বিভিন্ন ফুল। তবে এখানে কিছু ফুলের বৈশিষ্ট্য হল গভীর রাতে ফোটে, আবার মর্নিং গ্লোরি নামে একটি ফুল ভোর রাতে ফোটার পর সূর্যের আলোর তেজ পড়তেই চুপসে যায়। এছাড়া এই বাগানের জায়ান্ট লিলি নামক ফুলটির চারা লাগানোর দীর্ঘ ১২ বছর পর ওই ফুলের দেখা মিলেছে এবং কাপ্তাইয়ে সম্ভবত থাইপদ্ম নামক ফুলটি প্রথম এই বাগানটিতেই দেখা মিলেছে বলে জানান তিনি।

ফুলের পাশাপাশি এই বাগানে রয়েছে দেশী-বিদেশী হারেক রকমের ফল। রয়েছে ৭ রকমের লেবু গাছ। যার মধ্যে কাগজী লেবু, সিটলেস লেবু, সাউথ আফ্রিকান লেমন, ইন্ডিয়ান কট লেবু, সাতকড়া লেবু, বাতাবী লেবু, এলাচী লেবু, সুইট লেমন, চায়না কমলা উলে¬øখযোগ্য। দেশী-বিদেশী ফলের মধ্যে রয়েছে করোমচা, পেয়ালা, গোলাম জাম, গুটি জাম, দেশী জাম, লটকন, বিলম্ব, পিছফল, বারবা ডোজ চেরী, স্ট্রবেরী পেয়ারা, থাই পেয়ারা, মিষ্টি তেঁতুল, দুই রকম বেল, সাদা এবং লাল জাম্বুরা, কাঞ্চন নগরের পেয়ারা, ৪ রকমের জামরুল, বরিশালের আমড়া ঢেউয়া, কাউ ফল, কাট বাদাম সহ বিভিন্ন নামের জাতের ফল গাছের সমাহার। আরো রয়েছে কারি পাতা, লবঙ্গ, দারচিনি, তেজপাতা, এলাচ, গোল মরিচ সহ হারেক রকম মসল¬ার গাছ। অপরদিকে সৌন্দর্য্য বর্ধনের বিভিন্ন পাতাবাহার গাছতো আছেই। রয়েছে বনজ ও ঔষধি গাছের মধ্যে অ্যালোভেরা, তুলসি, পাথরকুচি, বাসক, অর্জুন ও ডায়বেটিস পাতা ইত্যাদি। এই বাগানে পান্তপথন নামের একটি গাছ আছে যেটি সাধারনত মরুভূমি অঞ্চলে বেশী দেখা যায় বলে জানান তিনি।

গাছের চারা সংগ্রহের বিষয়ে তিনি বলেন, এই শখের বাগানের জন্য অনেক দুর-দুরান্ত থেকে গাছের চারা সংগ্রহ করা হয়েছে। যেমন দিনাজপুর, রাজশাহী, যশোর, রংপুর, বগুড়া, ময়মনসিংহ, ঢাকা, কুমিল¬øা, চট্টগ্রাম, হাটহাজারি, খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি, রাইখালী কৃষি ফার্ম সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে গাছের চারা সংগ্রহ করা হয়েছে। তবে, বাগানের লিলিয়াম ফুল গাছের বাল¡টি তিনি সুদূর লন্ডন থেকে ৩ বছর পূর্বে উপহার পেয়েছেন বলে জানান। এছাড়া অনলাইনের মাধ্যমেও তিনি বেশ কিছু গাছের চারা গাছ ক্রয় করেছেন। তাছাড়া এই বাগানের গাছের চারা, উৎপাদিত ফুল-ফল তিনি দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গায় উপহার পাঠিয়েছেন।

গাছের পরিচর্যার বিষয়ে তিনি বলেন, দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে প্রতিদিন ভোরে ফজরের নামাজ শেষ করে বাগানের পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করেন তিনি। বিশেষ করে অবসর সময়টি তিনি এই বাগানেই দিয়ে থাকেন। বাগান পরিচর্যার ক্ষেত্রে সহধর্মিনী অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষিকা মেহবুব আরা আক্তার এবং ছোট ছেলে প্রকৌশলী আদেল হোসেন চৌধুরীর সহযোগীতা পান তিনি। এছাড়া নিয়মিত গাছে পানি দেন তিনি। এইভাবে শখের বাগান নিয়ে ভালো সময় কাটে তাঁর। পরিশেষে তিনি বলেন, প্রকৃতিকে ভালোবাসতে হবে। অবসর সময়টি যদি এইভাবে শখের বাগান তৈরির কাজে ব্যয় করা যায় তবে শরীর ও মন দুটোই ভালো থাকবে।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd