রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:৫৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
গুইমারায় সড়কে যুবকের গলাকাটা লাশ গুইমারায় পার্বত্য শান্তি চুক্তির রজত জয়ন্তী বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপন পাহাড়ে বর্ণিল সাজে শান্তিচুক্তি’র রজত জয়ন্তী উদযাপন শান্তি চুক্তির রজতজয়ন্তী উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে বিভিন্ন কর্মসূচির উদ্বোধন খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চুক্তি সংশোধনের দাবিতে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সংবাদ সম্মেলন মাটিরাঙ্গায় আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সাধারণ সভা ‘পাহাড়ে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের কাছে নিরীহ জনগণ জিম্মি’ একদিন পর পার্বত্য শান্তিচুক্তির ২৫ বছর পূর্তি সাজেকে সন্ত্রাসীদের গুলিতে জেএসএস সমর্থক নিহত মাটিরাঙ্গায় প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূলে সার ও বীজ বিতরণ
পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ৮টি সাংস্কৃতিক সংগঠনকে মিউজিক্যাল সামগ্রী বিতরণ

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ৮টি সাংস্কৃতিক সংগঠনকে মিউজিক্যাল সামগ্রী বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙ্গামাটি:: রাঙামাটি জেলাকে সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে এগিয়ে নিতে বরাবরের মতোই ভূমিকা রেখে চলেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড। এরই ধারাবাহিতায় জেলার ৮টি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনকে ১৫ লক্ষ টাকার মূল্যে বিভিন্ন মিউজিক্যাল সামগ্রী বিতরণ করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা।

রবিবার (২৩ অক্টোবর) সকালে বোর্ডের কর্ণফুলি সম্মেল কক্ষে বিভিন্ন সংগঠনের প্রধানদের হাতে এসব সামগ্রী তুলে দেন।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা বলেন, মানুষের সুস্থ মস্তিষ্কের জন্য খেলাধুলার পাশাপাশি সাংস্কৃতিকের মনোনিবেশ হওয়া অত্যন্ত জরুরী। গানের সুর মানুষের হৃদয়কে কোমল করে তুলে। মানুষের চিন্তা চেতনাকে আরো উজ্জীবিত করে।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন পার্বত্য এলাকায় পিছিয়ে পড়া বিভিন্ন সেক্টরগুলোর উন্নয়ন ঘটানো। পার্বত্য এলাকার মানুষের প্রতি আলাদা একটা টান রয়েছে প্রধামন্ত্রীর। যার কারণে তিনি চান এখানকার মানুষদের জীবনমান যাতে আরো উন্নত হয়।

তিনি আরও বলেন, পার্বত্য এলাকা এখন পিছিয়ে পড়া অঞ্চল নয়। এখানে আগের তুলনায় অনেক বেশি উন্নয়ন ঘটেছে।

কিছুদিন আগে ফুটবলে জাতীয় দলের মেয়েরা সাফে চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশের যে গৌরব এনে দিয়েছে তাদের মধ্যে পাঁচজনই আমাদের এই পার্বত্য এলাকার কৃতি সন্তান। তাদের সাথে একজন কোচ আছেন তিনিও এই এলাকার মেয়ে। সুতরাং কোনোভাবেই পার্বত্য অঞ্চলকে পিছিয়ে পড়া অঞ্চল বলার সুযোগ নেই। সবই সম্ভব হয়েছে আমাদের প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় প্রচেষ্টায়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, সদস্য-প্রশাসন ইফতেখার আহমেদ, সদস্য-বাস্তবায়ন মোহাম্মদ হারুন-অর রশীদ, উপ-পরিচালক মংছেনলাইন রাখাইন ও বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তুষিত চাকমাসহ অন্যান্যরা।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd