রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:২৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
গুইমারায় সড়কে যুবকের গলাকাটা লাশ গুইমারায় পার্বত্য শান্তি চুক্তির রজত জয়ন্তী বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপন পাহাড়ে বর্ণিল সাজে শান্তিচুক্তি’র রজত জয়ন্তী উদযাপন শান্তি চুক্তির রজতজয়ন্তী উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে বিভিন্ন কর্মসূচির উদ্বোধন খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চুক্তি সংশোধনের দাবিতে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সংবাদ সম্মেলন মাটিরাঙ্গায় আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সাধারণ সভা ‘পাহাড়ে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের কাছে নিরীহ জনগণ জিম্মি’ একদিন পর পার্বত্য শান্তিচুক্তির ২৫ বছর পূর্তি সাজেকে সন্ত্রাসীদের গুলিতে জেএসএস সমর্থক নিহত মাটিরাঙ্গায় প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূলে সার ও বীজ বিতরণ
সিন্দুকছড়ি সঃ প্রাঃ বিদ্যালয় বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত

সিন্দুকছড়ি সঃ প্রাঃ বিদ্যালয় বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত

নুরুল আলম:: গুইমারা উপজেলার সিন্দুকছড়ি বাজার সংলগ্ন সিন্দুকছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নানান সমস্যা জর্জরিত। ১৯৬৫ সালে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানটি আজও যেন উন্নয়নের ছোয়া থেকে বঞ্চিত। ২১১জন শিক্ষার্থী নিয়ে বিদ্যালয়টি চলমান। অবৈধ দখল মুুক্ত ও ছাত্রছাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করনে বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর নির্মাণের দাবি এলাকাবাসী ও বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের।

সরেজমিনে পরিদর্শন কালে দেখা যায়, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলাধীন গুইমারা উপজেলার সিন্দুকছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টিতে নানান সমস্যা দেখা দিয়েছে। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার দীর্ঘ ৫৭ বছর অতিবাহিত হলেও এখনো যেন জীর্ণশির্ণ হয়ে আছে বিদ্যালয়ের ছোট ছোট ভবন গুলো।

স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে কথা বললে তারা বলেন, গুইমারা উপজেলার সিন্দুকছড়িতে জনসংখ্যা অনেক বেশি। কিন্তু জনসংখ্যা বেশি হওয়া সত্বেও এখানকার বিদ্যালয় গুলো উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে। এখানকার কোমলমতি শিক্ষার্থীরা শ্রেনীকক্ষের অভাবে ঠিক মতো পাঠগ্রহন করতে পারছেনা। এছাড়াও বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখিন হতে হচ্ছে। সিন্দুকছড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছোট ছোট যে ভবন গুলো রয়েছে তাতে শিক্ষার্থীদের পাঠদান নিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয়ে শিক্ষকদের। এছাড়া জনবসতি সম্পূর্ণ এলাকা হওয়া সত্তেও প্রাথমিক বিদ্যালয়টিতে রয়েছে মাত্র ৬জন শিক্ষক। অফিস কক্ষ ও শ্রেনীকক্ষসহ বিদ্যালয়টিতে মোট কক্ষ রয়েছে মাত্র ৪টি।

স্বল্পপরিমান কক্ষে শিক্ষার্থীদের পাঠদানে বিভিন্ন সমস্যার সম্মূখিন হয়ে থাকে উল্লেখ করে উক্ত বিদ্যালয়ের শিক্ষক মহিউদ্দিন বলেন, বিদ্যালয়টি একটি জনবসতি সম্পূর্ণ এলাকায় হওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যাও বেশি। এছাড়াও প্রতিবছরই শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়ছে। বর্তমানে বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২১১জন। অফিস কক্ষ সহকারে ৪টি কক্ষের মাঝে ২শত ১১জন শিক্ষার্থীকে পাঠদান করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখিন হয়েও বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা পাঠদান অব্যহত রেখেছে। এছাড়া স্থানীয় কিছু প্রভাবশালীরা বিদ্যালয়ের সীমানা দখলের মরিয়া হয়ে উঠেছে। বিদ্যালয়ের সমস্যা গুলো নিরসণের জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট ভবন নির্মান এবং সীমানা দখল থেকে বিরত থাকার জন্য দাবি করেন।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd