বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:১১ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
১০টাকার জন্য ছুরিকাঘাত আহত তুষিতা চাকমা চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমাবেশে অংশগ্রহণের লক্ষে নানিয়ারচরে বিএনপি’র প্রস্তুতিমূলক সভা রাজস্থলীতে অতিরিক্ত বাঁশ বোঝাই ট্রাক উল্টে প্রাণ বেঁচে গেলো চালক ও হেলপার রাঙ্গামাটির কাপ্তাই হ্রদে স্থাপনা নির্মাণ নিষিদ্ধ রাঙ্গামাটিতে ‘বনভান্তের’ ১১তম পরিনির্বাণবার্ষিকী উদযাপিত খাগড়াছড়িতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের ৫ম বার্ষিকী সম্মেলন পাহাড়ে হতদরিদ্রদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ নানিয়ারচরে অতিরিক্ত দায়িত্বে ইউএনও সৈয়দা সাদিয়া মানিকছড়িতে অ্যাম্বুলেন্স চাপায় স্কুল ছাত্রের মৃত্যু পানছড়িতে ক্ষুদে বালক-বালিকাদের দৃষ্টিনন্দন ফুটবল অনুষ্ঠিত
অনৈতিক কাজ বন্ধ না হলে সমাজের অবক্ষয় বাড়বে–স্থানীয় এলাকাবাসী

অনৈতিক কাজ বন্ধ না হলে সমাজের অবক্ষয় বাড়বে–স্থানীয় এলাকাবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক:: খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলার বড়পিলাক মসজিদপাড়া এলাকার শাহজাহান মোল্লা এর সাথে বিয়ে বিহীন শারিরীক সম্পর্কের জেরে গতকাল সন্তান প্রসবের ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এলাকাবাসী।

জানা যায়, বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে র্দীঘ্য প্রায় ১২ বছর আগে শাহজাহান মোল্লা তার সাথে অবৈধ শারিরীক সম্পর্ক করে। বিষয়টি এলাকায় জানা জানি হলে, ময়না বেগমকে তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পরবর্তিতে শাহজাহান মোল্লা কৌশলে শালীকা ময়না বেগম কে বাবার বাড়ি থেকে নিয়ে আসে। ময়না বেগম পূর্বের স্বামী বাছির মিয়ার ক্রয়কৃত বাড়িতে বসবাস করলে সেখানে গিয়ে আগের মতো অবৈধ শারিরীক সম্পর্ক করে একাধিক সন্তান প্রসবের ঘটনা ঘটলে শাহজাহান মোল্লা একে একে সব সন্তান নষ্ট করতে ময়না বেগম বাধ্য করে। ১৩ জানুয়ারী রাতে সন্তান প্রসবের কথা শুনে শাহজাহান মোল্লা আত্মগোপনে চলে গেছেন বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে।

এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এসকল অনৈতিক কাজ বন্ধ না হলে সমাজের অবক্ষয় ঘটবে। কোনো ভাবেই এমন অনৈতিক কাজকে প্রশ্রয় দেওয়া যাবে না। কেননা প্রশ্রয় দিলেই এভাবে একজনের দেখা দেখি অন্যারা উদ্ভোদ্ধ হবে এবং এধরনের অনৈতিক কাজে লিপ্ত হবে। তারা আরো বলেন, এসব অপকর্মের সাথে সমাজের কিছু ব্যক্তি বিশেষ জড়িত রয়েছে তা না হলে দীর্ঘ ১২ বছর যাবৎ অবৈধ সম্পর্কের বিষয় জানা জানি থাকলেও কেন কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি তাদের বিরুদ্ধে। তাই প্রশাসনকে দ্রুত তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার জোর দাবি জানান।

এই বিষয়ে গুইমারা থানার অফিসার ইনর্চাজ মুহাম্মদ রশীদ এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, এখনো পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডণীয় অপরাধ।

Design & Developed BY Muktodhara Technology Ltd